প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বিষাদ-সিন্ধু এজিদ্‌-বধ পর্ব.pdf/২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় প্রবাহ এ »ፃ বহুতর দৃষ্টান্ত আছে। পলাইত শক্ৰগণ ছিন্ন বিছিন্ন হইয়া কে কোথায় লুকাইয়া থাকে, কে বলিতে পারে ? এজিদের সৈন্য বলিতে একটা প্রাণীও আর যুদ্ধক্ষেত্রে নাই। তবে মহাম্মদ হানিফ কোথায় রছিলেন ? এজিদের কোনু সংবাদ পাওয়া যায় নাই। বিপক্ষ দলেরও কোন সংবাদ এ পর্য্যন্ত পাওয়া যায় নাই। তবে এটা নিশ্চয় কথা যে, বিপক্ষ দলের সংবাদ শূন্ত । মহাম্মদ হানিফ কোথায়, আমার সেই চিন্তাই এইক্ষণ অধিকতর হইল। অশ্বারোহী সন্ধানী পাঠাইয়া এখনই সংবাদ আনিতে হইবে। আমরা রাজপুরী পর্যন্ত যাইতে যাইতে যুদ্ধ স্থানের সংবাদ অবশ্যই পাইব,--আশা করি। আঁদেশমাত্র সন্ধানী দূতের অশ্ব ছুটিল। শুভ্র নিশানের অগ্রভাগ আরোহীর মস্তকোপরি বায়ু সক্তিত ক্রীড়া করিতে লাগিল । গাজী রহমান পুনরায় মসহাব কাক্কাকে সম্বোধন করিয়া বলিতে লাগিলেন; নগর প্রবেশ সময়—পৃথক পৃথক পথে সৈন্যদলকে প্রবেশ করিতে অনুমতি দেওয়া হইয়াছে। যে দিক হইতে যে দল রাজভবন পৰ্য্যন্ত যাইবে, সেদিক রক্ষার ভার তাহাদের থাকিবে । যে পৰ্য্যন্ত পুরী মধ্যে দীন মহাম্মদী নিশান উড়িতে না দেঞ্জিবে, জয়নাল আবিদিনের বিজয়-ঘোষণা যতক্ষণ পর্য্যস্ত কৰ্ণে না শুনিবে, সে পৰ্য্যস্ত কোন দলই পুরী মধ্যে প্রবেশ করিতে পারিৰে না। মহাম্মদ হানিফের সংবাদ না জানিয়া, এজিদ পুরীতে প্রবেশ করিতে ইচ্ছা হইতেছে না । * , “ভালই, সংবাদ না জানিয়া এজিদ পুরীতে যাইব না। ভাল কথা, এই অবস্থায় বীগণকে উদ্ধ করিলে ক্ষতুি কি ? +.) না, না, তাহা হইতে পারে না, অগ্রে মহারাজের সংবাদ, তাহার পর পুরী প্রবেণু। পুরী প্রবেশ করিাই সৰ্ব্বাগ্রে রাজসিংহাসনের মর্যাদা রক্ষা, পরে বন্দী মোচন।” [...] “তবে ক্রমে অগ্রসর হওয়া যাক, ঐ মামাদেরই সৈন্যগণের জয়ধ্বনি শুনা যাইতেছে, যাধর ভিন্ন ভিন্ন পথে গিয়াছিল, তত্ত্বারা শীঘ্রই আমাদের সহিত একত্রে মিশিবে ” আবার সঙ্কেতস্থচক বাণী বাজিয়া উঠিল। গুহারাজ জয়নাল আবিদিনের চজাতপাত,জাতীয় মিশন বেশি হলি চলিতে লাগিল। জয়