পাতা:বিষাদ-সিন্ধু এজিদ্‌-বধ পর্ব.pdf/২৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিতীয় প্রবাহু । 을 কাঞ্চণ, কত রাজ-বসন, কত মণি-মুক্ত-খচিত আভরণ, রাজ-ব্যবহার্ঘ্য দ্রব্য, যাহার হস্তে যাহা পড়িতেছে, লইতেছে। আর যাহা নিম্প্রয়োজন মনে করিতেছে, ভাঙ্গিয়া ছারখার করিতেছে । .নৰ ভূপতি মহারথীগণে বেষ্টত হইয়া, ঈশ্বরের নাম করিতে করিতে রাজপ্রাসাদে উপস্থিত হইয়া, আল হাম লেল্লাহো’ বলিয়া রাজসিংহাসনে উপবেশন করিলেন । বিজয়-বাজনা বাজিতে লাগিল। রাজ-নিশান শতবার শির নামাইয়। দামস্কাধিপতির বিজয়-ঘোষণা করিল। অন্তান্ত রাজন্তগণ নত শিরে অভিবাদন করির রাজসিংহাসনের মর্যাদা রক্ষা করিলেন। রক্তমাখা শরীরে, রক্তমাখা তরবারী হস্তে, যথোপযুক্ত আসনে, রাজ-আদেশে উপবেশন করিলেন। সৈন্তগণ নিক্ষোধিত অসি হস্তে, নব’ভূপতির বিজয়-ঘোষণা করিয়া নত শিরে অভিবাদন করিলেন। গাজী রহমান রাজসিংহাসন চুম্বন করিয়া বলিতে লাগিলেন। “ভিন্ন দেশীয় মহামাননীয় ভূপতিগণ । রাজন্তগণ। এবং মাননীয় প্রধান প্রধান সৈন্তাধ্যক্ষগণ সৈন্তগণ যুদ্ধ সংশ্রণী বীরগণ । এবং সভাস্থ বন্ধুগণ দাময় ঈশ্বরের প্রসাদে এবং স্থাপনাদের বলবিক্রমে, সহায়ে ও সাহায্যে আজ জগতে অপূৰ্ব্ব কীৰ্ত্তি স্থাপন হইল। ধর্মের জয়, অধৰ্ম্মের ক্ষয়—তাহারও উজ্জল দৃষ্টান্ত জলস্ত রেখায় ইতিহাসের পৃষ্ঠায় ২ অঙ্কিত হইল । এই দামস্ক সিংহাসন আজ বক্ষ পাতিয়া যে ভূপতির উপবেশন স্থান দিয়াছে, ইহা এই নৰ ভূপতিরই পৈত্রিক আসন। যে কারণে এই আসন হাজরাত মাৰিয়ার করতলস্থ হয়, তৰিৱণ এইক্ষণ উল্লেখ কিক্লি মাত্র। -যুে হয় আপনার সকলেই তাহ অবগত আছেন । মহাত্মা মাৰিয়া যে যে কারণে এজিদের প্রতি নারাজ হইয়া, র্যাংদুের রাজ্য র্তাৰাদিগকে পুনঃরায় প্রতিদান করিতে কৃতসংকল্প হইয়াছিলেন, যে কৌশলে এজিদ মহামান্ত প্ৰভু হাসেন হোসেনকে বঞ্চনা করিয়া এই রাজ্য ষে ভাবে আপন অধীনে রাখিয়াছিলেন, সে বিষয় কাহারও অবিদিত নাই । এমাম বংশ খুকেবীরে ধ্বংশ করিয়া নিৰ্ব্বিবাদে দামন্থ এবং মদিন রাজ্য একচ্ছত্ররূপে ভোগ করিবার অভিলাষ করিয়া; যে কৌশলে প্রভু হাসেনের প্রাণ বিনাশ করিয়াছিলেন, যে কৌশলে এমাহোলনকে লুবনৰী মহাম্মদের রওজা হইচে বান্ধুির করিয়া-কুফায় পাঠাইয়াছিলেন, তাহা সকলেই ७न्छूिरिश्न ।