প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বিষাদ-সিন্ধু এজিদ্‌-বধ পর্ব.pdf/৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


* ゲ এজিদ-বধ পৰ্ব্ব । শুনিলাম এজিদের আগমন, মদীন আক্রমণের উপক্রম। ধক মদীনা ! বিধক্ষ্মীর হস্ত হইতে ধৰ্ম্ম রক্ষা, স্বাধীনতা রক্ষা, জাতীয় জীবন রক্ষা হেতু নারী জীবনে রণ বেশ। কোমল করে লোহ অস্ত্র । হৃদয়ের সহিত তোমায় नमछाडू করি । io প্রভু আমাব রণ-বঙ্গিণীদিগকে, ভগ্নি সম্ভাষণে কত অনুনয় বিনয় কাবয় যুদ্ধগমনে ক্ষান্ত কবিয়া স্বয় যুদ্ধে গমন কবুিলেন । ঈশ্বর কুপায় মদীনাবাদীর সাহায্যে যুদ্ধ জয় হইল। বিজয়ী বাবগণকে মদীনা ক্রোড পাতিয়া কোলে লইল । আমাৰ ভাবনা, চিন্তা, এজিদেব ভয় হৃদয় হইতে একবাক্সে সরিয়া গেল। এজিদ পক্ষ বাস্ত। আনন্দেৰ সীমা নাই। কিন্তু একটা কথা মনে হইল। এ যুদ্ধের কাবণ কি ? প্রকাশ্যে যাহাই থাকুক, লোকে যাহাই বলুক, রাজ্য লাভের সঙ্গে সঙ্গে জনাব লাভ আশা যে এজিদের মনে না ছিল, তাহা নহে। ঈশ্বধ রক্ষা করিলেন । কিন্তু জায়দাব চিস্তা, জয়নাবের মুখ-তরী বিষাদ-সিন্ধুতে বিসৰ্জ্জন কবা । সোণায় সোহাগা মিশিল । মায়মুনীর ছলনায়, জায়দা ইহকাল পরকালের কথা ভুলিয়। স্বপত্নী বাদে হিংসার বশবৰ্ত্তিনী হইয়। স্বহস্তে স্বামী মুখে বিষ ঢালিয়। দিলেন। খর্জুর উপলক্ষ মাত্র। স্বায়দার কার্য জায়দা করিল। কিন্তু ঈশ্বর রক্ষা করিলেন । প্রাণ বঁাচিল । প্রভু রক্ষা পাইলেন। কিন্তু শক্রর ক্রোধ দ্বিগুণ, ক্রমে চতুগুণ বাডিয়া প্রাণ বিনাশেব নুতন চেষ্টা হইত্নে ৰাগিল। চক্রির চক্ৰ ভেদ করা বাহাবও সাধ্য নাই , সেই ময়মুনার চক্র, সেই জায়দার প্রদত্ত বিষেই প্রভু আমার জগৎ কান্দাইয়। জগতে চিরবিষাদ-বায়ু বস্থাইয়। স্বৰ্গধামে চলিয়া গেলেন । জয়নাবের কপাল—পোড় কপাল আবাৰ পুড়িল । আবার বৈধব্য এত । ংসার-মুখে পুনরায় জলাঞ্জলি'। স্থিৰ করিলাম, এ পবিত্র পুরী জীবনে পরিত্যাগ করিব না। যেখানেই যাইব নিস্তার নাই। এজিদের হস্ত হইতে জয়নাধের নিস্তার নাই ভাবিয়া, প্ৰভু হোসেনেব আল্লয়েই রছিলাম। এজিদের আশা যেমন, তেমনই রহিয়৷ গেল। এত চেষ্টা, এত যত্ন, এষ্ঠ কৌশলেও জয়নাব হস্তগত হইল না; সম্পূর্ণ বিম্বই আশ্রয়দাতা। আশ্রধদাতাকে ইহ জগৎ হইতে দূর করাই এজিদের আস্বরিক ইচ্ছ। প্রকাশ্যে রাজ্য লাভের কথা, কিন্তু মনের মধ্যে অন্য কথা।