পাতা:বিষাদ-সিন্ধু এজিদ্‌-বধ পর্ব.pdf/৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রখম প্রবাহ । මුං আরাধনায় জীবনের অবশিষ্ট অংশ কাটিয়া যাইবে । নিয়তির বিধানে তাহা ঘটিল না । অথচ এজিদের স্বেচ্ছাচার—বিচারে, বৃদ্ধবয়সে লৌহ-নিগড়ে আবদ্ধ হইতে হইল। শুনুন, মন্ত্রিপ্রবর মৃত্ব মৃদু স্বরে কি কথা বলিতেছেন ,— “ব্লাজার অভাব হইলে রাজা পাওয়া যায়, রাজ-বিপ্লব ঘটলে তাহারও শান্তি হয়, রাজ্য মধ্যে বিঘোর বিদ্রোহানল প্ৰজলিত হইলে যথাসময়ে অবশুই নিৰ্ব্বাণ হয়, উপযুক্ত দাবী বুঝাইয়া দিলে সে দমনীয় তেজও একেবারে বিলীন হুইয়। উড়িষা যায। মহামারী, জলপ্লাবন ইত্যাদি দৈব-জুৰ্ব্বিপাকে বাজ্য ধ্বংসের উপক্রম বোধ হইলেও নিরাসসাগরে ভাসিতে হয় না— আশা থাকে। বাজাব মজ্জা দেবে, কি উপযুক্ত মন্ত্রণামভাবে রাজ্য-শাসনে অন্ধতবাধ হইলেও আশা থাকে। যুদ্ধ রাজাব প্রিয়পাত্র ইবার আশয়ে, মন্ত্রদাতাগণ, অবিচাব, অত্যাচাব নিবারণ উপদেশ না দিয়া অহরহঃ তোষামোদের ডালী মাথায় করিয়। প্রতি আজ্ঞা অনুমোদন করাতেই যদি বাজা প্রজায় মনাস্তব ঘটে, তাঙ্কাতেও আশ থাকে –সে ক্ষেত্রেও আশা থাকে, বিস্তু স্বাধীনতা ধনে একেবাব বঞ্চিত হইলে সহজে সে মহামণির মুখ অব দেখ। স্কয় না । বহু আঘাশেও আর সে র? হস্তগত হয় না । স্বাধীন স্বয একবাব মঞ্জনিত হইলে পুনবোদু হওয়া বড়ই ভাগ্যের কথা । বাজী আব বাজ্য এ ছুইটী পৃথক কথা—পৃথক ভাল,—পৃথক সম্বন্ধ। রাজ নিজ বুদ্ধি দোধে অপদস্থ হউন, সত্যুক্তি স্লমন্ত্রনায় অবহেলা করিয়া পর-পরতলে দলিত হউন, সেচ্ছাচাবিত্ব দোষে অধঃপাতে যাউন, তাহাতে রাজ্যের বি ? কাৰ্য্য অনুরূপ ফল পাপায়যায়ী প্লাস্তি । স্বেচ্ছাচারি, মুমন্ত্রণ বিদ্বেৰী, নীতি বর্জিত, উচিতে বিরক্ত, এমন বাজাব রাজ্যপাট যত স্বত্বরে ধ্বংস হয়, ততই মঙ্গল , ততই রাজ্যেব শনিক্ষয় । ভবিষ্যৎ মঙ্গলের অাশ। দামস্ক বাজ্যের আর মঙ্গল নাই। বিনা কাবণেঃ প্রেমের কুহকে, পিরীতের দায়ে, প্রণয় বাসনায়, পবিণয় ইচ্ছায়ু, যদি এই রাজ্য যথার্থই পরব ਕੁਝ হয়, পরপদভরে দলিত হয়, আমধুদেব স্বাধীনতা লোপ হয়, তবে সে স্থাঃখের আর সীমা থাকিবে না । সে মনঃকষ্টেব আব ইতি হইবে না। রাজা প্রজা-রক্ষক, বিচারক, প্রজাপালক, এবং করগ্রাহক ও কিন্তু রাজ্যের যথার্থ অধিকারী প্রজ। দায়িত্ব প্রজারই অধিক। রাজ্য প্রজার। রক্ষার দায়িত্ব বাল্লি -