পাতা:বীথিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৪৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বীথিকা আঁচলের প্রান্ত তা’র পলাশের স্পর্শমায়া আকাশেতে দেয় বুলাইয়া । পউষের পালা হোলো শেষ, ক্তর বাতাসে লাগে দক্ষিণের কচিৎ আবেশ । হিম-ঝুড়ি শাখা পরে চিকণ চঞ্চল পাতা ঝলমল করে শীতের রোদরে। পাণ্ডুনীল আকাশেতে চিল উড়ে যায় বহুদূরে। আমলকী-তলা ছেয়ে থ’সে পড়ে ফল, জোটে সেথা ছেলেদের দল । অঁকাবঁকা বন-পথে আলোছায়া গাথা, অকস্মাৎ ঘুরে ঘুরে ওড়ে ঝরা পাত সচকিত হাওয়ার খেয়ালে । ঝোপের আড়ালে গলা-ফোল গিরগিটি স্তব্ধ আছে ঘাসে । ঝুড়ি নিয়ে বার-বার সাওতাল মেয়ে যায় আসে। ఫిన >ዓ