পাতা:বীথিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৮১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বীথিক সব সাম্ভনার শেষে সব পথ একেবারে মিলেছে শূন্যের অন্ধকারে ; ফিরিছ বিশ্রামহারা ঘুরে ঘুরে, খুজিছ কাছের বিশ্ব মুহুর্তে যা চলে গেল দূরে,— খুজিছ বুকের ধন, সে আর তো নেই, বুকের পাথর হোলো মুহুর্তেই । চির-চেনা ছিল চোখে-চোথে অকস্মাৎ মিলাল অপরিচিত লোকে । দেবতা যেখানে ছিল সেথা জ্বালাইতে গেলে ধূপ, সেখানে বিদ্রুেপ । সৰ্ব্বশূন্যতার ধারে জীবনের পোড়ো ঘরে অবরুদ্ধ দ্বারে দাও নাড়া ; ভিতরে কে দিবে সাড়া ? মূৰ্ছাতুর অাধারের উঠিছে নিশ্বাস, ভাঙা বিশ্বে পড়ে আছে ভেঙে-পড়া বিপুল বিশ্বাস । Yo Sシ (t