পাতা:বীথিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বীথিক যবে দেখা দেয় সেবা-মাধুর্য্যে ছোওয়া তখন সে হয় কী অনির্ববচনায় । বুলি অনুমানে চোখে কৌতুক ঝলে, ভাবিছ বসিয়া সহাস-ওষ্ঠাপর এ সমস্তই কবিতার কৌশলে মৃত্যুসঙ্কেতে মোটা ফরমাস করা । আচ্ছা, না হয় ইঙ্গিত শুনে হেসো, বরদানে, দেবি, না হয় হইবে বাম, খালি হাতে যদি আসে, তবে তাই এসো, সে দুটি হাতের ও কিছু কম নহে দাম । সেই কথা ভালো, তুমি চলে এসে এক বাতাসে তোমার আভাস যেন গো থাকে, স্তব্ধ প্রহরে হুজনে বিজনে দেখা, সন্ধ্যাতারাটি শিরাম ডালের ফঁাকে । তার পরে যদি ফিরে যা ও ধারে পারে ভুলে ফেলে যেয়ে তোমার যুগার মালা, হমান বাজিবে বক্ষের শিরে শিরে তার পরে হবে কাব্য লেখার পাল ।