পাতা:বেজায় রগড় - ভূপেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/২৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

२* বেজায় রগড় ভাতে—গুগলির ঝোল-শোল মাছ ঝলসানো ! বলিঙ্কারি রুচিকে । রায়ণগুলো যা বাকি আছে চাপিয়ে দিইগে— ( তথাকরণ ) এইবার অামি এক চাল চালি ( মুসলমান-সজ্জায় নেমাজ পাঠকরণ ও মাঝে মাঝে ‘আল্লা বলিয়া চীৎকার ) { শ্মির প্রবেশ ) ঝি। কোথাগো বামুন ঠাকুর ? রান্নাবান্না হ’ল ? বেলা যে ঢের হ’য়েছে ! ছেলেপুল কৰ্ত্তাগিন্নী—ওমা ! এ আবার কি ঢং !" ម្ល៉ោះ" আচ্ছ নৃকুলে তো দেখছি ও বামুন-ঠাকুর । আরে কথা কওনানে ? ওম—কাছা খুলে ওঠ বোস কৰ্ত্তে লাগলো যে শো ? এ্য— একি নেমাজ পোড়ছে নকি ? ওমা—বামুনের ছেলে নেমাজ করে কি গো ? ও বামুন ঠাকুর । আরে রঙ্গ রাখ-বেলা হ’ল—সবার ভাত বাড়ে । ওমা ! এযে ঠিক মোছলমানের মতন নেমাজ করে গো ! এ্যা—একি সত্যি মেছলমান নাকি ? হু —তাই হবে । নইলে একমনে উঠছে, ব’সছে, হেঁট হচ্ছে, আকাশ পানে চাইছে ? ওমা—কি সৰ্ব্বনাশ ! বাঙাল শেষে একটা মোছলমানকে বামুন ব’লে রাখলে ? ওমা—কি হবে গো ! ওগো—আজি ক'দিন যে ওর রান্না—বড় বড় গরাস ক’রে খেয়েছি ! ওগো—কি হ’ল গো ! পোড়াকপালি কাতি আমাকে কা’র ঘরে চাকুরি করে দিলে গো ! আজি বাঙালের মুখে আমি মুড়ে জলিব তবে ছাড়ব— ( ষোড়শীকান্ত ও মাতঙ্গিনীর প্রবেশ ) ষো কি র্যা মাগী—কি হইছে ! भाँ । कि छ्हें८छ् छि ?