প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


> २९ বৌ-ঠাকুরাণীব হ্রাট রুক্মিণী কহিল, ”আচ্ছ। তোমাৰ আঙুলেব ঐ আংটিটি দাও । উদযাদিত্য তৎক্ষণাৎ ত হাব হাত হক্টতে আংটি খুলিfকলিমা দিলেন। রুক্মিণী কুডাইয লইয| বহিব হইষা গেল। মনে ভাবিল ডাকিনীব মন্থমোহ এখনো দব হয নি, আবে কিছুদিন যাক, তাহাব পব আমবে মন্ত্র খাটিবে। কক্মিণী চলিযা গেলে উদযাদিত্য শয্যাব উপবে আসিযা পড়িলেন। দুষ্ট বান্ততে মৃগ ঢাকিযা কাদিয কহিলেন, “কোথাষ, স্নবম কোথায । অক্তি আমাব এ দগ্ধ বজ্ৰাহত হৃদযে শান্তি দিবে কে ?” দ্বাবিংশ পরিচ্ছেদ ভাগবতেব অবস্থা বড় ভাল নহে। সে চুপচাপ বসিযা কযদিন খবিয অনববত তামাক ফুকিতেছে। ভাগবত যখন মনোযোগেব সহিত তামাক ফুকিতে থাকে, তখন প্রতিবেশীদেব আশঙ্কাব কাবণ উপস্থিত হয়। কাবণ, তাহাব মুখ দিযা কালো কালো ধোযা পাকাইযা পাকাইয উঠিতে থাকে, তাহাব মনেব মধ্যেও তেমনি একটা ক্লষ্ণবর্ণ পাকচক্ৰেব কাবখানা চলিতে থাকে। কিন্তু ভাগবত লোকটা বড় ধৰ্ম্মনিষ্ঠ। সে কাহাবো সঙ্গে মেশে না এই যা তাহাব দোষ, হবিনামেব মালা লইয "থাকে, অধিক কথা কয় না, পবচর্চায থাকে না । কিন্তু কেহ যখন ঘোবতব বিপদে পডে, তখন ভাগবতেব মতো পাকা পবামর্শ দিতে আব কেহ পাবে না। ভাগবত কখনো ইচ্ছ। কবিযা পবেব অনিষ্ট কবে না, কিন্তু আব কেহ যদি তাহাব অনিষ্ট কবে, তবে ভাগবত ইহজন্মে তাঙ্গা কখনে ভোলে না, তাহাব শোধ তুলিয। তবে সে হুক নামাইষা রাখে। এক কথাষ–সংসাবে যাহাকে ভালো বলে, ভাগবত তাঁহাই ,'দাড়াব লোকুেরাও তাহাকে মান্ত কবে, দুববস্থ্য ভাগবত ধার করিয়াছিল, কিন্তু ঘটি বাট বেচিয়। তাহা শোধ করিয়াছে।