প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ծ ԵՏ বৌ-ঠাকুবাণীব হাট রাজা অধীব হইষ কহিলেন, “বামমোহন, শীঘ্ৰ বল।” রামমোহন ঘোড হাতে কহিল—“মহাবাজ—” রাজা কহিলেন—“বী বল।” বামমোহন—“মহাবাজ, মা-ঠাককণ আসিতে চাহিলেন না।” বলিয রামমোহনেব চোখ দিয জল পড়িতে লাগিল। বুঝি এ সস্তানেব অভিমানেব অশ্রু । বোধ ববি এ আশ্রজলেব অর্থ—"মায়েব প্রতি আমাব এত বিশ্বাস ছিল যে সেই বিশ্বাসেব জোবে আমি বুক ফুলাইখ, আনন্দ করিষা মাকে আনিতে গেলাম, আব ম৷ অসিলেন না , ম আমাব সম্মান রাখিলেন ন " কী জানি কী মনে কবিয বুদ্ধ বামমোহন চোৰ্থেব জল সামলাইতে পাবিল না। রাজা কথাটা শুনিযাই একেবাবে দাডাইয উঠিয। চোখ পাকাইয। বলিয়া উঠিলেন, “বটে—” অনেকক্ষণ পয্যন্ত তাহাব অব বাক্যস্ফাৰ इहेज नां । “আসিতে চাহিলেন না বটে। বেটা, তুই বেবো, বেবে। আমবি হুমুখ হইতে এখনি বেবে।” বামমোহন একটি কথা ন কহিয| বহিব হই গেল । সে জানিত তাহাবি সমস্ত দোষ, অতএব সমুচিত দণ্ড পাওযী কিছু অন্যায নহে। রাজা কী কবিয যে ইহাব শোধ তুলিবেন কিছুতেই ভাবিয়। পাইলেন না। প্রতাপাদিত্যেব কিছু কবিতে পাবিবেন না, বিভাকেও হাতেব কাছে পাইতেছেন না । বামচন্দ্র বাষ অধীব হইয! বেড়াইতে লাগিলেন। দিন দুয়েকের মধ্যে সংবাদটা নানা আকাবে নানা দিকে বাষ্ট্র হইয পড়ি এমন অবস্থা হল দাডাইল যে, প্রতিশোধ না লইলে আৰ মুখ রক্ষা হয় না। এমন কি, প্রজাবা পয্যন্ত প্রতিশোধ লইবাব জঙ্ক র্যস্ত জুল। তাহাবা কহিল, “আমাদেব মহারাজাব অপমান!” অপমানট। tয়ন সকলূেব গায়ে লাগিয়াছে। একে ত প্রতিহিংসা-প্রবৃত্তি বামচন্দ্ৰ বায়ে