প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৪২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


98३ বৌ-ঠাকুরাণীব হাট না লইযা মহিষী বাচিতে পাবেন না, চাবিদিক আবুল পথাব মেথিষ। কঁাদিতে কঁদিতে প্রতাপাদিত্যেব কাছে গেলেন । কহিলেস“মকবাজ, বিভাব ত যাহ। হ্য একটা কিছু কবিতে হইবে।” প্রতাপাদিত্য কছিলেন, “কেন বলে। দেখি ?” মহিষী কহিলেন, 'ন', কিছু যে গুইয়াছে তাহ নহে—তবে বিভাকে ত এক সমযে গুণ্ডবব ডি পাঠাইতেই হইবে ।” প্রতাপাদিত্য—“সে ত বুঝিলাম, তবে এত দিন পবে আজ যে সহস। তাহ। মনে পড়িল ?” মহিষী ভীত হইয৷ কহিলেন—“ঐ তোমাব এক কথা, আমি কি খলিতেছি যে কিছু হইয়াছে ? যদি কিছু হয—” - প্রতাপাদিত্য বিবক্ত হইযা কহিলেন “হইবে আব কী ?” মহিষী—“এই মনে কবে। যদি জামাই বিভাকে একেবাবে ত্যাগ করে। বলিযা মহিষী কন্ধক হইয৷ কঁদিতে লাগিলেন। প্রতাপাদিত্য অত্যন্ত ক্রুদ্ধ হইয়। উঠিলেন। তাহাৰ চোখ দিয অগ্নিকণা বাহিব হইল । মহাবাজেব সেই মূৰ্ত্তি দেখিযা মহিষী জন্তু মুছিযা তাড়াতাড়ি কহিলেন “তাই বলিয়া জামাই কি আব সত্য সত্যই লিখিযাছে যে, ওগো তোমাদেব বিভাকে আমি ত্যাগ কবিলাম, তাহাকে আব চন্দ্রদ্বীপে পাঠাইও মা, তাহা নহে—তবে কথ। এক্ট, যদি কোনো দিন তাই লিখিষ। বলে ।” প্রতাপাদিত্য কহিলেন—“তখন তাহাব বিহিত বিধান কবিব, এখন তাহার জন্য ভাবিবাৰ অবসব নাই ।” কাদিয়া কহিলেন,—“মহাৰাজ তোমার পায়ে পডি, আমাব একটি কথা বাখো । একবার ভাবিয়া দেখো বিভাব কী হইবে । জনমাব পাৰাণ প্রাবলিয়া আজও রহিয়াছে নহিলে আমাকে তবে শাবির