প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৌ-ঠাকুরাণীর হাট )\ుసా! না । কেহ কহিল—“যখন আগুন লাগিয়াছিল, তখন তিনিও কারাগারে ছিলেন।” কেহ কহিল—“না, রাত্রেই তিনি সংবাদ পাইয়াছিলেন যে, গৃহদাহে যুবরাজের মৃত্যু হইয়াছে ও তাহ শুনিয়াই তিনি তৎক্ষণাৎ যশোর ত্যাগ করিয়া চলিয়া গিয়াছেন।” প্রতাপাদিত্য এইরূপে যখন সভায় বসিয়া সকলের সাক্ষ্য শুনিতেছেন, এমন সময়ে গৃহদ্বারে এক কলরব উঠিল। একজন স্ত্রীলোক ঘরে প্রবেশ করিতে চায়, কিন্তু প্রহরীরা তাহাকে নিষেধ করিতেছে। শুনিয়া প্রতাপাদিত্য তাহাকে ঘরে লইয়| আসিতে আদেশ করিলেন । একজন প্রহরী রুক্মিণীকে সঙ্গে করিয়া আনিল । রাজ তাহাকে জিজ্ঞাসা করিলেন—“তুমি কী চাও?” সে হাত নাড়ির উচ্চৈঃস্বরে বলিল, “আমি আর কিছু চাই না—তোমার ঐ প্রহরীদিগকে, সকলকে একে একে ছয় মাস গারদে পচাইয়া ডালকুত্ত দিয়া খাওয়াও এই আমি দেখিতে চাই । ওরা কি তোমাকে মানে, না তোমাকে ভয় করে ।” এই কথা শুনিয়া প্রহরীরা চারিদিক হইতে গোল করিয়া উঠিল । রুক্মিণী পিছন ফিরিয়া চোখ পাকাইয়া তীব্র এক ধমক দিয়া কহিল, "চুপ কর মিন্সের । কাল যখন তোদের হাত পায় ধরিয়ু, পইপই করিয়া বলিলাম—ওগে তোমাদের যুবরাজ তোমাদের রায়গডের বুড় রাজার সঙ্গে পালায়—তখন যে তোরা পোড়ারমুখোরা আমার কথায় কান দিলি নে ? রাজার বাড়ি চাকুরি করে, তোমাদের বড় অহঙ্কার হইয়াছে, তোমরা সাপের পাচ পা দেখিয়াছ ! পিপডের পাখা উঠে মরিবার তরে!” তাপাদিত্য কহিলেন, “যাহা যাহা ঘটিয়াছে সমস্ত বলে ।” রুক্মিণী কহিল, “বলিব আর কী ! তোমাদের যুবরাজ কাল রাত্রে বুড় রাজার সঙ্গে পালাইয়াছে।” o প্রতাপাদিত্য জিজ্ঞাসা করিলেন, “ঘরে কে আগুন দিয়াছে জানো ?” রুক্মিণী কহিল—“আমি আর জানি না ! সেই যে তোমাদের সীতারাম। তোমাদের যুবরাজের সঙ্গে যে তার বড় পীরিত—আর কেউ যেন