প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৭৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৌ-ঠাকুরাণীর হাট ميS A বসন্তরাঙ্গ উদয়াদিত্যেব গলা ধরিয়া কছিলেন, “কেম ভাই, কেন ছাড়াছাড়ি হইবে ? তুই আমাকে ছাড়িয়া ঘাসনে । এ বুড়া বয়সে তুই আমাকে ফেলিযা পালাসনে ভাই!” উয়াদিত্যের চোখে জল জাগিল। তিনি বিস্থিত হইলেন —তাহাব জমের অভিসন্ধি যেন বসন্তবায় কী কবিয়া টেব পাইয়াছেন । নিশ্বাস ফেলিয়া কছিলেন, “আমি কাছে থাকিলেই যে তোমাব বিপদ ঘটিবে দাদা মহাশয় ।” বসন্তরায় হাসিয়া কহিলেন—“কিসেব বিপদ ভাই ? এ বয়সে কি জার বিপদকে ভয় কবি ! মবণেব বাডা ত অাব বিপদ নাই ! তা মন্ত্রণ যে আমার প্রতিবেশী , সে নিত্য আমাব তত্ত্ব লইতে পাঠায়, তাহাকে আমি ভয় কবি না। যে ব্যক্তি জীবনের সমস্ত বিপদ অতিক্রম ঋরিয়া বুড়া বয়স পৰ্য্যস্ত বাচিয়া থাকিতে পারে, তীরে জাসিয়া তাহার নৌকাডুবি হইলই বা ?” } উদয়াদিত্য আজ সমস্ত দিন বসন্তরায়েব সঙ্গে সঙ্গে রছিলেন । সমস্ত দিন টিপু টিপ্‌ কবিয়া বৃষ্টি পড়িতে লাগিল। বিকালবেলায় বৃষ্টি ধরিয়া গেল, উদয়াদিভ্য উঠিলেন। বসন্তরায় ক্ষহিলেন- "দাদা, ক্ষোথায় যাস !” Q. উদয়াদিত্য কছিলেন—“একটু বেড়াইয়া আসি।” বসন্তরায় কহিলেন—“আজ নাই বা গেলি।” উদয়াদিত্য কছিলেন—“কেন, দাদা মহাশয় ?” বসন্তা উ্যাতিকে জড়াইল ধরিয়া কছিলেন, "জাজ ईरे बु*ि श्रेल वारिब इन न, भाव इरे चाबाब काइ शक अ्रं * উরাষ্টিা কছিলেন, “জমি অধিক দূর স্বাবে না দাদা মহাশয়, এখনি ফিরিয়া আদিব।” দিয়া বাহির হইয় গেলেন।