প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১৭৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৌ-ঠাকুরাগীয় হাট չԳծ প্রাসাদের বহিশ্বর্ণবে যাইতেই একজন গ্রহী কছিল, “মহাৰাজ আপনাব সঙ্গে যাইব ?” यूबवांछ कश्जिन-“ना बांदशक नांद्दे ।” প্রহরী কহিল—“মহাবাজেব হাতে অস্ত্র নাই ।” যুবরাজ কহিলেন—“অস্ত্রেব প্রযোজন কী ?” উদয়াদিও প্রাসাদেব বাহিবে গেলেন। একটি দীর্ঘ বিস্তৃত মাঠ আছে, সেই মাঠেব মধ্যে গিষা পড়িলেন। একৃলা বেডাইতে লাগিলেন। ক্রমে, দিনেব আলো মিলাইয়। আসিতে লাগিল । মনে কত কী ভারন উঠিল। যুবৰাজ তাহাব এই লক্ষ্যহীন উন্ধেগুহীন জীবনের কথা ভাবিতে লাগিলেন। ভাবিয দেখিলেন, তাহাব কিছু স্থির নাই, কোথাও স্থিতি নাই—পবেব মুহূর্তেই কী হইবে তাহাব ঠিখান নাই। বয়স অল্প, এখনে জীবনেব অনেক অবশিষ্ট আছে—কোথাও ঘর বাড়ি না বাধিয়া কোথাও স্থায়ী আশ্ৰয ন পাইয়৷ এই স্থদুব-বিস্তৃত ভবিষ্যৎ এমন করিয়া কিরূপে কাটিবে ? তাহাব পর মনে পডিল—বিভা ৷ বিভা এখন কোথায় আছে ? এত কাল আমিই তাহাব খেব সূৰ্য্য আড়াল কবিয়া বসিয়াছিলাম—এখন কি সে স্বর্থী হইয়াছে ? ধিভাকে মনে মনে কত আশীৰ্ব্বাদ করিলেন । মাঠের মধ্যে বৌত্রে বাখালদেব বসিবার নিমিত্ত অশখ, বট, খেজুর, স্বপাবি প্রভৃতিৰ এক বন আছে—যুদ্ধবাজ তাহার মধ্যে গিয়া প্রবেশ করিলেন। তখন সন্ধ্যা হইয়া আসিয়াছে। অন্ধকাৰ কবিয়াছে। যুবরাজের জাজপালাইবাব কথা ছিল—সেই সংকল্প লইয়া তিনি জমে মনে জালালন করিতেছিলেন। বসন্তবায় যখন শুনিবেন উদ্যাদিও পালাইয়া ciश्, ख्रश्त्र ७iशव लिङ्गश् चरश्ा श्र-उशन लिनि शाका चावाच भादेह कक्रम भूष कथम रविग्नां वणिरबम-“चंj ! गांश, मीमांव काद DHBBD BBBS BBDD DD DD DH BBB BBBB SAAAA