প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৌ-ঠাকুরাণীর হাট 6: বুদ্ধিহীন হৃদয়ের বিরুদ্ধে এঞ্চ দিনেব জন্য সমস্ত জগৎকে যেন উত্তেজিত করিয়া দিয়াছিলেন, বিশ্বচরাচর যেন একতন্ত্র হইয়া আমার এই স্কুঞ্জ হৃদয়টিকে মুহূৰ্বে বিপথে লইয়া গেল। মুহূৰ্ত্তমত্ৰ—আর অধিক নয় সমস্ত বহির্জগতের মুহূৰ্ত্তস্থায়ী এক নিদারুণ আঘাত, আব মুহূর্বের মধ্যে একটি Fiণ হৃদয়ের মূল বিদীর্ণ হষ্টয় গেলঃবিদ্যুদ্বেগে সে ধুলিকে আলিঙ্গন করিয়া পড়িল । তাহার পরে যখন উঠিল তখন ধূলিধূসরিত, স্নান, সে ধূলি আব মুছিল না, সে মলিনতার চিন্তু আর উঠিল না। আমি কি করিয়াছিলন, বিদ্যুত, যে পাপে এক মূহূৰ্বের মধ্যে আমার জীবনের সমস্ত প্রকে কালি করিলে ? নিকে রাত্রি কবিলে ? অমর হৃদয়ের পুপ-বনে মালী ৪ জুই ফুলের মৃগগুলিও যেন লজ্জয় কালে হইয় গেল !” বলিতে বলিতে উদয়াদিত্যের গৌরবর্ণ মুর্থ রক্তবর্ণ-হুষ্টয়া উঠিল, অয়ত নেত্র অধিকতর বিস্ফাৱিত ইষ্টয়; উঠিল, মাথা হইতে পা পর্ব্যস্ত একটি বিদ্যুৎশিখা কাপিয়া উঠিল । সুবন চর্ষে, গৰ্ব্বে, কষ্টে কহিল “আমার মাথ। খাও, ওকথ। থাক্‌ ৷” উদয়াদিত্য, “ধীরে ধীরে যখন রক্ত শীতল হইয়া গেল সকলি যখন • যথাযথ পরিমাণে দেখিতে পাইলাম ; যখন জগৎকে উষ্ণ, ঘূর্ণিত মস্তিষ্ক, রক্ত-নয়ন মাতালের কুঙ্কটিকাময় ঘূর্ণ্যমান স্বপ্নদৃপ্ত বলিয়া মনে না হইয়া প্রকৃত কার্যাক্ষেত্র বলিয়া মনে হটল, তখন মনের কি অবস্থা। কোথা হইতে কোথায় मैडन : শত সহস্ৰ লক্ষ ক্রোশ পাতালের গহ্বরে,জন্তু वृकडग्न अझडम ब्रश्नौब शाश्वा ॐtरूबाटछ अनक न ८कनिष्ठ भफिब গেলাম। দাদামহাশয় স্নেহভরে ভাকিয় जल्लेब'cशनन ; ॐाह মুখ দেখাইলাম কি বলিয়া ? কিন্তু সেই অবধি আমাকে রায়গড় খ্রি इहेन । जोशाघश*ग्न बायाटके मा দেখিলে থাকিতে পারেন না; আঁধাঙ্গে উক্রিয় পাঠাইতেন। আমার এমনি ভয় করিত যে আমি কোন মস্তেই 5ाब मी । ऊिनि चब्र६ जांभळक ७ छग्निर्नौ दिञ्चांद्रक দেখিতে