প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৬৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


岛帆 বৌ-ঠাকুরাণীর হাট পড়িতে লাগিল। যোড হস্তে কহিল—“মাগো—যদি আমি পতিব্ৰতা সতী হই, তবে এবাব আমার স্বামীকে উহার পিতার হাত হইতে রক্ষা করে। আমি যে র্তাহাকে আজ এই বিপদের মধ্যে বিদায় দিলাম, সে কেবল তোর ভরসাতেই মা ! তুই যদি আমাকে বিনাশ করিস, তবে পৃথিবীতে তোকে আর কেহ বিশ্বাস কবিবে ন৷ ” বলিতে বলিতে কাদিয়া উঠিল । সুরমা সেই অন্ধকারে বসিযা কতবাব মনে মনে “মা” “মা” বলিয়া ডাকিল, কিন্তু মনে হইল যেন মা তাহার কথা শুনিতে পাইলেন না ! মনে মনে তাহার পায়ে যে পুষ্পাঞ্জলি দিল মনে হইল যেন, তিনি তাহা লইলেন না, র্তাহার পা হইতে পডিয়া গেল । সুবমা কাদিয়া কহিল “কেন মা, আমি ক্ষী করিয়াছি ?” তাহাব উত্তব শুনিতে পাইল না । সে সেই চারিদিকের অন্ধকারের মধ্যে দেখিজে পাইল, প্রলয়ের মূৰ্ত্তি নাচিতেছে! স্বরম চারিদিক শূন্তময় দেশিতে লাগিল। সে একাকী সে ঘরে আব বসিয়া থাকিতে পাবিল না। বাহির হইয়া বিভার ঘরে আসিল । বসন্তরায় কাতব স্বলে কহিলেন—“দাদা এখনো ফিরিল না, কী इइंरब ?” * স্বরম দেয়ালে ঠেস দিষ্ণ দাডাইয়। কহিল, “বিধাতা ধাহ করেন!” রামচন্দ্র রায় তখন মনে মনে তাহার পুরাতন ভৃত্য ༈ ཨོཾ་སྭཱ་ར་ན།། সৰ্ব্বনাশ করিতে ছিলেন ! কেন না, তাহা হইতেই এই সমস্ত বিপদ ঘটিল। তাহার যত প্রকার শান্তি সম্ভব তাহার বিধান কন্থিতেছিলেন। মাঝে মাঝে একবার চৈতন্য হইতেছে যে, শাস্তি দিবার বুঝি আর অবসব থাকিবে না। উদয়াদিত্য ত্ববারি হন্তে অন্তঃপুর অতিক্রম করিয়া গঙ্গারে গিয়৷ সৰলে পদাঘাত করিলেন—কহিলেন, "কে আছিল ?” বাহির হইতে উত্তর আলিল “আজ, আমি সীতারাম।" যুবরাঙ্কু দুচম্বরে কহিলেন—“শীঘ্র আর cו וזלזא"