প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৮৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


brや বৌ-ঠাকুবাণীব হাট চতুর্দশ পরিচ্ছেদ মঙ্গলাব কুটীব যশোহৱেব এক প্রান্তে ছিল। সেঙ্গথানে বসিষা সে মালা জপ করিতেছিল। এমন সমযে শাকসবজিব চুবডি হাতে কবিৰ বাজবাটীব দাসী মাতঙ্গিনী আসি উ স্থিত হইল। মাতঙ্গ কহিল, ‘ আজ হাটে আসিফাছিলাম, অমনি ভাবিলাম, অনেক দিন মঙ্গলাদিদিকে দেখি নাই, তা একবাব দেখিখ আসিগে । আজ ভাই অনেক কাজ আছে, অধিকক্ষণ থাকিতে পাবিব না।" বলিয। চুবডি ব্লাখিয নিশ্চিন্ত ভাবে সেই পানে বসিল । “ত, দিদি, তুমি ত সব জানেই, সেই মিন্সে আমাকে বড় ভালবাসিন, ভাল এখনে বসে তবে আৰ এঞ্জন কাব পবে তাব মন গিযছে আমি টেব পাষ্ট্যাছি—ত। সেই মাগীটাব ত্রিবাত্রিব মধ্যে মৰণ হয এমন কবিতে পাবে না ?” মঙ্গলাব নিকট গক হাবানো হক্টতে স্বামী হাবনে৷ পয্যন্ত সকল প্রকাব দুর্ঘটনাবই ঔষধ আছে, তা ছাড। সে বশীকরণেব এমন উপ"া জানে যে, বাজবাটীব বড় বড় ভূত্য মঙ্গলাল কুটবে কত গগু গগু। গড়াগডি ধাঁয। যে মাগটাব ত্রিবত্ৰিৰ মধ্যে মৰণ হইলে মাতৃদিনী বঁচে সে আব কেহ নহে স্বঘং মঙ্গল । 贛 .মঙ্গল| মনে মনে হাসিযা কহিল, “সে মাগল মবিবাব জন্য বড় তডিাতাডি পডে নাই, যমেব কাজ বাডাইযা তবে সে মবিবে।” মঙ্গল হাসিয। প্রকাস্তে ককিল, “তোমার মতন রূপসীকে ফেলিয। আর কোথাও মন যায় এমন অবসিক আছে নাকি ? ত, নাতিনী, তোমাব ভাবনা নাই । তাহাব মন তুমি ফিবিয পাইবে । তোমাব চোখেব মধ্যেই ঔষধ আছে, ಆಸ್ಟ್ বেশি কবিয প্রযোগ কবিয়া দেখিও তাহাতেও যদি না হয় ওৰে এই শিকডটি তাহাকে পানের সঙ্গে খাওয়াইও ।” বলিয়া এক শুকনে , चेिकख्ञांनिम्नां निळ ।