প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বৌ-ঠাকুরাণীর হাট-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৯৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৌ-ঠাকুবাণীৰ হাট হইল।” কিন্তু হাত ষোড কবিয়া কহিলেন, “কিন্তু এমন কী অপবী কবিয়াছি, যাহাতে এত বড় শাস্তি আমাকে বহন কবিতে হইবে ? আমি কী কবিয দেখিব, আমব জন্য আট নষটি ক্ষুধিত মূখে অন্ন জুটিতেছে ন, অট নযটি হতভাগা নিবাশ্য হইয। পথে পথে কাদিয বেডাইতেছে , অথচ আমাব পাতে অয়েব অভাব নাই ? পিতা, আমাব যাহ। কিছু সব থাপন।বষ্ট প্রসাদে । আপনি আমাব পাতে আবশ্বকেব অধিক অন্ন দিতেছেন, কিন্তু আপনি যদি আমrব অহাবেব সময আমাব সম্মুখে অট নটি ক্ষুধিত কাতবকে বসাইযা বাপেন, অথচ তাহাদেব মুখে অন্ন তুলিী তে বাধা দেন, তবে সে অন্ন যে আমাব বিষ ।” উত্তেজিত উদযাদিত্যকে প্রতাপাদিত্য কথ। কহিবাব সময কিছুমাত্র বাধা দিলেন না, সমস্ত কথা শেষ হইলে পল আস্তে আস্তে কহিলেন, “তোমাব যা বক্তব্য তাহ শুনিলাম, এক্ষণে আমব যা বক্তব্য তাহ বলি । ভাগবত ও সীতাবামেব বৃত্তি আমি বন্ধ কবিয দিয ছি, আব কেহ যদি তাহাদেব বৃত্তি নিদ্ধাবণ কবিষা দেয, তবে সে আমাৰ ইচ্ছাব বিৰুদ্ধাচাৰী বলিষা গণ্য হইবে।” প্রতাপাদিত্যেব মনে মনে বিশেষ একটু বোষের উদ্য হইয়াছিল"। সম্ভবতঃ তিনি নিজেও তাহাব কাবণ বুঝিতে পাবেন নাই, কিন্তু তাহাব কাবণ এই “আমি যেন ভাবি একটা নিঃবঙ্গ কবিয়ছি, তাই দয়াব শরীব উড্যাদিত্য তাঙ্গাব প্রতিবিধান কবিতে আসিলেন । দেখি তিনি দষা কবিয কী কবিতে পাবেন । আমি যেখানে নিষ্ঠব সেখানে আব যে কেহ দয়ালু হইবে, এত বড আম্পন্ধা কাহাব প্রাণে সয় ।” উদয়াদিত্য স্থবমাব কাছে গিয সমস্ত কহিলেন। স্ববমা কহিল, “সে দিন সমস্ত দিন কিছু খাইতে পায নাই, সন্ধ্যাবেলায সীতাবামেব মা, সীতারামের ছোট মেয়েটিকে লই আমার কাছে আসিয়া কাদিয়া পডিল। আমি মেট সন্ধ্যাবেলায়ু কিছু দিই,"ব তাহাবা সমস্ত পরিবাব থাইতে