প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:ভারতীয় সাধক - শরৎকুমার রায়.pdf/৩০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভারতীয়ু সাধক ক্লািচ্ছসাধনা সুফল প্রসব করিবে মনে করিয়া তিনি দেহের দাবীর দিকে ভ্ৰক্ষেপ না করিয়া অনাহারে অনিদ্রায় দুঃখবিমুক্তির टे°iांश भनन कब्रिड লাগিলেন। কত রৌদ্র, কত 乖 কত শীত, কত DBDD DDDD BKD S uuBuBD D B S BYYDB BD BBBBDS পারিলেন না। র্তাহার দৈহিক লাবণ্য বিলুপ্ত হইল, সুগঠিত বলিষ্ঠ বাপু কঙ্কালে পরিণত হইল । কিন্তু এত ক্লেশ, এত যাতনা স্বীকার করিয়াও সিদ্ধার্থ তাহার চিরবাঞ্জিত বােধি লাভ করিতে পাবিলেন না তাহার চিত্তের ব্যাকুলত কিছুতেই দূর হইল না। তিনি পরিশেষে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হইলেন যে, কৃচ্ছসাধনা দ্বারা বাসনার অগ্নিনির্বাপিত হইতে পারে না, এবং ইহা দ্বারা সত্যের বিমল আলোকলৈাভ দুরাশামাত্র । একদা একটি জম্বুতরুতলে উপবিষ্ট হইয়া সিদ্ধার্থ তাহার মনের অবস্থা এবং ' কৃচ্ছসাধনার ফলাফল বিচারে প্রবৃত্ত হইলেন। তিনি ভাবিলেন“আমার দেহ ক্ষীণ, ক্ষীণতর হইয়াছে ; উপবাসের দ্বারা আমি কঙ্কালে পরিণত হইলাম। কিন্তু তথাপি নিৰ্বাণ-লোকের কোনো সন্ধানই পাইলাম না। আমার অবলম্বিত এই কৃচ্ছসাধনার পন্থা কিছুতেই আৰ্য্যমাৰ্গ হইতে পারে না। এক্ষণে যুক্তপানাহার দ্বারা দেহকে বলিষ্ঠ করিয়া মনকে সত্যলোকের সন্ধানে নিযুক্ত করা কীৰ্ত্তব্য ।” ५aठेझ° निष्क्रांप्रुष्ठ छे°नैौऊ झद्देश তিনি নৈরঞ্জনার নিৰ্ম্মল নীরে অবগাহন করিয়া স্নান করিলেন ; তাহার শরীর এমন দুৰ্বল হইয়া পড়িয়াছে যে, স্নানান্তে চেষ্টা করিয়াণ্ড তিনি নিজের শক্তিতে তীরে উঠিতে পারিলেন না। অবশেষে নদীবক্ষে অবনত একখানি বৃক্ষশাখা ५ब्रिन्ना डिनि कूटश फेर्टिहलन । মন্থরগমনে, সিদ্ধার্থ আপন বুঢ়ীরের দিকে চলিলেন। পথিমধ্যে বনপথে তিনি সংজ্ঞাহীন হইয়া ভূতলে পড়িয়া গেলেন। পঞ্চশিন্য মনে