প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:ভারতীয় সাধক - শরৎকুমার রায়.pdf/৪৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


So R ভারতীয় সাধক পথের জঞ্জাল দূর করিতে দেখিয়া তিনি বলিয়াছিলেন, “দেখ, তোমাক এই রাস্তাব ধূলি জঞ্জাল ঝাঁট দিলেই চলিবে না। ধৰ্ম্মের পথে অনেক জঞ্জাল পুঞ্জীভূত তইয়া উঠিয়াছে, সাধনায় প্রবৃত্ত হইয়া তুমি সেই আবর্জন DD BB S SBBD DDBDBD BB DDDDB D DBDBB DDBDDDDBBDS “তোমাকে সামান্য বস্ত্ৰ বয়ন করিলে চলিবে না, হিন্দু ও মুসলমান এহি দুই ধৰ্ম্মের সারা সত্যের সূত্ৰ দিয়া অতি সুকৌশল অপুর্ব বস্ত্ৰবয়নের মঞ্চখন তোমায় গ্ৰহণ করিতে হইবে।” পতিতকে, যবনকে, জাতিবর্ণনির্বিচারে সকলকে স্বীকার কবিবাব এই অসামান্য উদারতা রামানন্দ কেমন করিয়া লাভ করিলেন, সেই ইতিবৃত্ত্ব আমরা অবগত নতি । তবে ইহা সহজেই অনুমিত হইতে পারে যে, একৈশ্বববাদী মহাপুক্ষত্রে মহম্মদের ধৰ্ম্ম তাঁহার চরিত্ৰেব উপব আশ্চৰ্যা প্ৰভাব বিস্তার করিয়াছিল । রামানন্দের আবির্ভাবেব বহু পূর্বেই নব্বধৰ্ম্মবলে বলী মুসলমানগণ এক হস্তে আসি এবং অপব হস্তে কোরাণ লইয়া পুনঃপুনঃ ভারতবাসীর বাজ্য હ डि আক্রমণ করিয়াছিলেন। মুসলমানেরা বাহুবলে ভারতে যেমন রাজ্যবিস্তার করিয়াছিলেন, ধৰ্ম্মবলে তেমনি ভারতবাসীর মনের উপব অসামান্য প্রভাব বিস্তাব করিয়াছিলেন । ব্ৰাহ্মণ্যধৰ্ম্মের কেন্দ্ৰভূমি বারাণসীধাম এক সময়ে এই দুই ধৰ্ম্মের আন্দোলনের প্রধান ক্ষেত্ৰ হইয়া উঠিয়াছিল। এই উভয় ধৰ্ম্মের সজঘাতভূমিষ্ট মহাত্মা ,गिनक्षत्र जीवनांब्र शन छिल । ¢छे जैश्किलछे डिनि ऊँशब द्वीबहनन्न উপলব্ধ। উদার ধৰ্ম্মমত সুস্রাঙ্কোচে প্রচার করিয়াছিলেন এবং এ৯১ সুত্রই তাঁহার অনুবৰ্ত্তী পরম সাধক কবীব মহাশয় রাম ও রহিমের একত্ব অকুষ্ঠিত কণ্ঠে ঘোষণা করিয়াছেন। এই পুণ্যতীর্থে যাহারা উপস্থিত ছিলেন, झिंकूनगभांनॉर्नलॅिप्लश cश्रे हे उंब्रि-श्त्रज्ञ সাধকদিগের কী হাভে বঞ্চিত হন নাই।