পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S S SR भैद्र कानिभ কেবল অন্যান্য ফিরিঙ্গি অপেক্ষা ইংরাজিদিগকে শ্রেষ্ঠ মনে করিতে শিক্ষা করিয়াছিল । মীর কাসিম তাহা জানিতেন । ইংরাজের সমর-শিক্ষার উৎকৃষ্ট প্ৰণালীই ইংরাজের বাহুবলের মূল কারণ বলিয়াই মীর কাসিমের ধারণা ছিল। সেকালের ইংরাজ বাঙ্গালীর পক্ষে পরস্পরের প্রকৃত দোষ-গুণ নিরপেক্ষভাবে বিচার করিবার সম্ভাবনা ছিল না । ইংরাজের যৎসামান্য কারণে সমগ্র বাঙ্গালীজাতির বিরুদ্ধে নানাবিধ কুৎসা রটনা করিতেন ; বাঙ্গালীরাও যৎসামান্য কারণে সমগ্র ইংরাজ জাতির বিরুদ্ধে কুৎসা রটনা করিতে ক্ৰটি করিতেন না । সে সকল কথা ঐতিহাসিক প্ৰমাণ স্বরূপ উদ্ধৃত হইবার অযোগ্য । তথাপি সেকালের ইতিহাস অধ্যয়ন করিতে হইলে, সেকালের ভ্ৰান্ত সংস্কারকেও একেবারে পরিত্যাগ করিবার উপায় নাই। লোকে ইংরাজিদিগকে ভয় করিত ; ভক্তি করিত না । লোকে ইংরাজিদিগের বাহুবলের ও সমরকৌশলের প্রশংসা করিত ; ধৰ্ম্মনীতির শ্রেষ্ঠতা স্বীকার করিত না । কেহ ইংরাজী-চরিত্রের অনুকরণ করিবার প্রয়োজন উপলব্ধি করিত না । ইংরাজেরাই বরং আহারবিহার-বিলাস-বিভ্ৰমে বাঙ্গালী-চরিত্রের অনুকরণ করিতে আরম্ভ করিয়াছিলেন। তঁহারা আলবোলায় তামাকু সেবন করিতেন ; মধ্যাহ-ভোজনের পর দিবানিদ্রা অভ্যাস করিতেন । রাজপথে বহির্গত DBB BDBLDDK BDBBBDBDS KBDD DDB BBBDD DBDBDBD DDD ছত্র ধারণ করিয়া চলিত। মীর কাসিম ইংরাজের সমর-কৌশলের অনুকারণ করিতে কৃতসংকল্প হইলেন । যে উপায়ে ইংরাজ-সেনা বিশ্ববিজয়িনী বীরকীৰ্ত্তি লাভ করিয়াছে, সেই উপায়ে এ দেশের লোক কি সমর-কৌশলে ইংরাজের সমকক্ষ হইয়া উঠিতে পারে না ? এই চিন্তা মীর কাসিমের মস্তিষ্ক অধিকার করিয়াছিল। তঁহার পূর্বে আর কোন ভারতীয় রাজা বা নবাব সে