পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সপ্তদশ পরিচ্ছেদ እ 8 ዓ BDD BDBD BED KD DDD DDSS SDB gKD BBBD Dyt খার সহিত মুঙ্গেরে বসিয়া পরামর্শ করিতে লাগিলেন ; যখন যেখানে যেরূপ সেনাদল প্রেরণ করা কীৰ্ত্তব্য, তাহার ব্যবস্থা করিতে প্ৰবৃত্ত হইলেন ; এবং শেষ পৰ্য্যন্ত প্ৰাণপণে যুদ্ধ করিবার জন্য সেনা ও শস্ত্ৰ-সংগ্রহে মনোনিবেশ করিলেন । এদিকে ইংরাজ-সেনা নিতান্ত অসহায় অবস্থায় অগ্রসর হইতে লাগিল । তাহাদের সেনাপতির অসীম সাহস এবং অপরাজিত অধ্যবসায় ভিন্ন অন্য সম্বল অধিক ছিল না। রসদ ও অস্ত্ৰ-শস্ত্ৰ বহন করিবার উপযোগী যান ও বাহনের অভাবে সেনাদলকে অনেক অতিরিক্ত পরিশ্রম করিতে হইল । গ্রীষ্মপ্ৰধান দেশে এরূপ অবস্থায় যুদ্ধযাত্রা করা সহজ নহে।।-প্ৰতিদিন সেনাদল পরিশ্রান্ত হইয়া পড়িতে লাগিল। পলাশীর যুদ্ধের পূৰ্বে যে পথে সেনাপতি ক্লাইব সতর্ক পদবিক্ষেপে শনৈ: শনৈ: অগ্রসর হইয়াছিলেন, এবারও সেই পথ । সে-বার মীর জাফরের সেনাদলের সহায়তা লাভের আশা ছিল, এধার কেবল স্বয়ং মীর জাফর । তথাপি মীর জাফরের নামের দোহাই দিয়া ইংরাজ-সেনা অনেক উপকার লাভ করিতে লাগিল । ইংরাজ-শিবিরে উপনীত হইয়া বৃদ্ধ মীর জাফর নামসৰ্বস্ব নবাবের মত অভিনয় করিতে লাগিলেন । তিনি যে সন্ধিপত্রে আত্মবিক্রয় করিলেন, তাহাতে বাঙ্গালীর স্বাধীনতার ছায়া পৰ্য্যন্তও বিলুপ্ত হইয়া গেল। যে সকল পাত্ৰমিত্র সিরাজদ্দৌলাকে পদবিচু্যত করিয়া মীর জাফরকে সিংহাসন দান করিয়াছিলেন, তঁাহারা আবার মীর জাফরকে নবাব বলিয়া অভিবাদন করিলেন । আবার স্বার্থপর বাঙ্গালী স্বদেশের কথা বিস্মৃত হইয়া, স্বকীয় পদগৌরব বৃদ্ধির জন্য লালায়িত হইল। মীর জাফর এই সকল পাত্ৰমিত্রের সহায়তা লাভ করিয়া ইংরাজ-শিবিরে বাস করিতে লাগিলেন ।