পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১৬৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


() मैद्र कमि উপন্যাসের মীর কাসিম কিন্তু উধুয়ানালার সমর-শিবিরে সশরীরে বৰ্ত্তমান । কেবল তাহাই নহে-ইংরাজেরা যখন নবাব-শিবির আক্রমণ করে, সে সময়ে “তাম্বুমধ্যে এক নবাব ও বন্দী তকি বসিয়া” রহিয়াছেন। তার পর কি হইল ? উপন্যাসে লিখিত রহিয়াছে,-“সেই সময়ে কামানের গোলা আসিয়া তাম্বুর মধ্যে পড়িতে লাগিল । নবাব সেই সময়ে স্বীয় কটিবন্ধ হইতে আসি নিষ্কাষিত করিয়া, তিকির বক্ষে স্বহস্তে বিদ্ধ করিলেন। তিকি মরিল । নবাব তাঙ্গুর বাহিরে গেলেন।” বলা বাহুল্য, ইহার এক বৰ্ণও সত্য নহে-সর্বৈব স্বকপোলকল্পিত । মহম্মদ তকির মত প্ৰভুভক্ত বীরপুঙ্গবের নামে এমন অকীৰ্ত্তিকর অলীক কল্পনার অবতারণা করা হইল কেন ? মীর কাসিমের মত স্বদেশবৎসল৷ মুসলমান নরপতির নামে এমন দুরপনেয় কলঙ্ক লেপন করিবার প্রয়োজন হইল কেন ? উপন্যাসে দেখিতে পাওয়া যায়, তাহা না হইলে, উপন্যাসবর্ণিত অনেকগুলি সরস কল্পনা নিতান্ত অবসন্ন হইযা পড়িত । বোধ হয় সেই জন্য,-উপন্যাসের খাতিরে,-সৌন্দৰ্য্য-সৃষ্টির অনুরোধে,- ঐতিহাসিক পন্থা পরিত্যাগ করিতে হইযাছে। ইতিহাস পরিত্যক্ত হউক, উপন্যাস বেশ উজ্জল হইয়া উঠিযাছে। উপন্যাসে দেখিতে পাওয়া যায়-দৌলত-উন্নিসা ওরফে “দলনী বেগম” নামী মীর কাসিমের এক “সপ্তদশবর্ষীয়া” সহধৰ্ম্মিানী নাকি সহসা ইংরাজ-হস্তে বন্দিনী হইয়াছিলেন। তিকি খা নাকি সে সময়ে মুরশিদাবাদের রাজকৰ্ম্মচারী।* তাই তঁহার উপরেই নাকি বেগম উদ্ধারের ভারার্পণ হয়। উপন্যাসের তকি খাঁ অপ্ৰতিভ হইবার পাত্ৰ নহেন। তিনি নবাবের নিকট সরফরাজ থাকিবার জন্য, দলনীর সন্ধান না করিয়াই, মিথ্যা করিয়া লিখিয়া পাঠাইলেন-“সন্ধান ত মিলিয়াছে, কিন্তু বেগমকে আর রাজসদনে -skrar ar s: wr-e* حكسعسعسعس.

  • তিকি খাঁ মুরশিদাবাদের রাজকৰ্ম্মচারী ছিলেন না ; যিনি এই সময়ে উক্ত রাজপদে প্রতিষ্ঠিত ছিলেন, তাহার নাম সয়ের মুতক্ষরীণ-পাঠকের নিকট অপরিজ্ঞাত নহে।