পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/২১০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


R 9 M भौद्ध कांजिभ ইংরাজ-সেনাপতির বিভীষিকা প্ৰবল করিয়া তুলিতে লাগিল। এরূপ অবস্থায় মীর জাফর ভিন্ন ইংরাজের আকৃত্ৰিম সুহৃদের সংখ্যা অধিক ছিল না । যে বিদ্যায়। মীর জাফর ইতিহাস-বিখ্যাত, সেই বিদ্যাই এক্ষণে ইংরাজ-রক্ষার একমাত্র উপায় বলিয়া স্থিরীকৃত হইল । মীর জাফর স্বদেশদ্রোহী বলিয়া চিরকলঙ্কিত হইয়া রহিয়াছেন । তাহাতেই তঁহার রণকৌশল ও মন্ত্রণাকৌশল বিস্মৃত হইয়া গিয়াছে। কৌশল প্রয়োগে মীরজাফর সিদ্ধহস্ত ছিলেন ; তঁাহার মন্ত্রণাদাতা মহারাজা নন্দকুমার কুটিল কৌশলের উষ্ণ প্রস্রবণ বলিয়াই ইতিহাসে সুপরিচিত । সুতরাং কৌশল প্রয়োগের ক্রটি হইল না। যে কৌশল উদ্ভাবিত হইল, দেশকলপাত্রের বিচার করিলে, তাহাকে অব্যৰ্থ কৌশল বলিয়াই ব্যক্তি করিতে হইবে। মীর জাফর গোপনে সুজা-উদ্দৌলার নিকট দূত প্রেরণ করিলেন ; মীর সমসউদ্দীন নামক গুপ্তচরের যোগে মীরজাফর এবং সুজাউদ্দৌলার মধ্যে পত্র-বিনিময়ের সুত্রপাত হইল। ইহাতে বেণী বাহাদুর নিরতিশয় ঈর্ষান্বিত হইয়া, বাদশাহের দরবারে নানা ষড়যন্ত্রের সৃষ্টি করিয়া, বাদশাহকে মীর জাফরের পক্ষভুক্ত করিয়া তুলিলেন । মীর জাফর রাজ্য লাভে উৎসাহাযুক্ত ; মীর কাসিম একাকী ; মীর ইংরাজসেনার বাহুবলে দুৰ্দ্ধৰ্ষ । সুতরাং মীর কাসিমকে পরিত্যাগ করিয়া, মীরজাফরের সহায়তা সাধন করিলেই বাদশাহের পক্ষে সহজে পিতৃসিংহাসন অধিকার করিবার সম্ভাবনা উপস্থিত হইতে পারে। মীর জাফরের এই সকল প্রলোভনে। eBB BBDS BDD BB BBD D D D SLDBBBD SDD DDS DBK সিতাব রায়কে মীর জাফরের নিকট প্রেরণ করিলেন । মীর জাফর সকল যুদ্ধেই ইংরাজিদিগের সাহায্যে উপৰ্য্যুপরি বিজয়লাভ করিয়াছেন, তাহাতে যে বাদশাহ অতিমাত্র আনন্দলাভ করিয়াছেন, সে কথাও পত্ৰমধ্যে উল্লিখিত হইল। এদিকে মীর কাসিমের সহিত শিষ্টাচারও পূর্ববৎ চলিতে লাগিল। মীর কাসিম মিত্ৰলাভ করিয়াও এইরূপে প্ৰতারিত