পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/২২০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


R O মীর কাসিম হইলেন। তিনি অপহৃত ধনরত্নের অংশ গ্ৰহণ করিয়া, সোলেমানের বিচার করিলেন না ; বরং তিনখার টাকার জন্য মীর কাসিমকেই ভৎসনা করিয়া বিদায় দান করিলেন । মীর কাসিম সন্ত্রান্ত-শরণাগত-অতিথিধৰ্ম্মভ্ৰাতা । সুজা-উদ্দৌলা স্বার্থচিন্তায় মতিভ্ৰান্ত হইয়া, ইহার কোন কথাই ভাবিয়া দেখিলেন না। আপন পটমণ্ডপে প্ৰত্যাগত হইয়া ; মীর । কাসিম আর অভ্যন্তরে প্রবেশ করিতে পারিলেন না ; অভিমানেমৰ্ম্মবেদনায়-হতাশ্বাসে-তঁাহার হৃদয় ভাঙ্গিয়া পড়িল । তিনি অনুগত ভৃত্যবর্গের সহিত ফকিরের জীৰ্ণক স্থা পরিধান করিয়া, দীনবেশে পটমণ্ডপের দ্বারদেশে উপবেশন করিলেন। যে দেখিল, কেহই অশ্রু সংবরণ করিতে পারিল না ; সকলেই সুজা-উদ্দৌলাকে ধিক্কার করিতে লাগিল। অগত্যা স্বয়ং মীর কাসিমের নিকট উপনীত হইয়া সুজাউদ্দৌলা তঁহাকে বেশ পরিবর্তন করিতে বাধ্য করিলেন। কিন্তু অধিক দিন লজ্জা রক্ষা করিবার উপায় রহিল না। কপৰ্দকশূন্য সিংহাসনবিচ্যুত নাম-সর্বস্ব নবাব সাজিয়া, মীর কাসিম শান্ত হইতে পারিলেন না । তিনি ব্যয় সংক্ষেপ করিয়া অর্থ সংগ্রহের চেষ্টায় প্ৰবৃত্ত হইলেন। মীর কাসিম সমরুর সেনাদলকে বিদায় দান করিতে প্ৰস্তুত হইলেন । ইউরোপীয় প্ৰণালীতে সমরশিক্ষায় সুশিক্ষিত হইলে, এদেশের লোক ইউরোপের লোকের সমকক্ষ হইতে পারে কি না, তাহার পরীক্ষা করিবার জন্য মীর কাসিম কত যত্নে, কত অর্থব্যয়ে যে সেনাদল সুশিক্ষিত করিয়া তুলিয়াছিলেন, তাহাদিগকে অর্থব্যয়ে বিদায় দান করিতে হৃদয় বিদীর্ণ হইবার উপক্রম হইল ;-দুরাচার সমরু তাহাতে বিচলিত হইল না। সে পূর্বেই গোপনে গোপনে সুজা উদ্দৌলার শরণাগত হইয়াছিল ; মীর কাসিম বিদায় দান করিলে, অস্ত্ৰ শস্ত্ৰ লইয়া সুজা-উদ্দৌলার শিবিরে আশ্ৰয় লাভ করিবার ব্যবস্থা করিয়া রাখিয়াছিল। সে অস্ত্ৰ শস্ত্ৰ প্ৰত্যাৰ্পণ করিতে স্বীকৃত হইল না ; উদ্ধত বাক্যে বলিয়া