পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/৬৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


সপ্তম পরিচ্ছেদ হইয়া তাহদের আদেশ-বহনের জন্য ইতিহাসে “ক্লাইবের গর্দভ” নামে পরিচিত হইতেন না । সমষ এবং সুযোগের অভাবে যে বন্ধু বন্ধুরূপে করমর্দন করিতেছে, সময় ও সুযোগ পাইবামাত্র সে বন্ধু শত্রুরূপে প্ৰাণ হরণ করিতেও কিছুমাত্র ইতস্ততঃ করিবে না, সে বন্ধুকে সেকালের ইংরাজী-বাঙ্গালী মৌখিক শিষ্টাচার রক্ষার্থ-ই বন্ধু বলিয়া সম্ভাষণ করিত ; কিন্তু সকলেই সকলকে বিলক্ষণ চিনিত । এরূপ অবস্থায়, এতদিন পরে, আমাদের পক্ষে সূক্ষ্মবিচার করিয়া, ইংরাজকে अदाश्डि দিয়া, মীর জাফরকে অপরাধী সাজাইয়া, অথবা মীর জাফরকে অব্যাহতি দিয়া, ইংরাজকে অপরাধী সাজাইয়া, ইতিহাস রচনা করা শোভা পায় না । উভয়েরই দোষ গুণ একরূপ ; BTTDBDuD DDuDBBD BD BBDBBDYS BDBBBD S S DDBDD BBBLLLDDS ইংরাজি সুযোগ লাভ করিলে, মীর জাফরকে নামমাত্র নবাব রাখিয়া, এদেশের সৰ্বেসৰ্ব্বা হইয়া উঠিবেন ; সিংহাসনে পদাৰ্পণ করিবার পূর্বে মীর জাফর কেন,-প্ৰতিভাশালিনী রাণী ভবানী ভিন্ন-স্মার BBuD BBK BBDDSS gKK BBDD DDD S S SBBDDB BDDDBBDDLLD জন্য সকলেই অর্থবলে ঠিকা লাঠিয়ালের ন্যায় ঠিক সৈন্য সংগ্ৰহ করিতেন । মীর জাফর ও সেইভাবে ইংরাজের সহায়তা গ্ৰহণ করিতেছেন। ভাবিয়া, ইংরাজকে বন্ধুভাবে সম্ভাষণ করিতে সম্মত হইয়াছিলেন । সিংহাসনে পদাৰ্পণ করিবামাত্র ইংরাজবন্ধুর ক্ষমতা বিস্তারিকৌশল পৰ্য্যবেক্ষণ করিয়া, মীর জাফর নিতান্ত নিরূপাযি হইয়াই তাহার গতিরোধের চেষ্টা করিতে সাহস পান নাই । মীরণ উত্তেজিত হইতেন । মীর জাফরের পরবত্তী করুণ বিলাপে স্পষ্টই বোধ হয়, মীরণ তঁহাকে সতর্ক করিতেও ক্ৰটি করিতেন না । কিন্তু ভাগ্যদোষে মীর জাফরের পক্ষে ভ্ৰম সংশোধনের সুবিধা ও সুযোগ নষ্ট হইয়া গিয়াছিল। মীর কাসিম ইহার জন্য নীরবে ওষ্ঠদংশন করিতেন । কেহ জানিত না,