পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


নবম পরিচ্ছেদ ዓ Šኃ উঠিলেন ; বিদায়প্রাপ্ত দাসদাসীগণ পথে পথে বিচরণ করিতে লাগিল ; যাহাঁদের অযথা-সঞ্চিত ঐশ্বৰ্য্য রাজকোষে পুনরানীত হইল, তাহারা চারিদিকে হাহাকার করিয়া বেড়াইতে লাগিল ;-আতি অল্প দিনের মধ্যে কাসিম আলির বিরুদ্ধে ইংরাজদরবারে অনেক অভিযোগ উপস্থিত হইল! কাসিম আলির সিংহাসনারোহণে র্যাহারা প্ৰতিবাদ করিয়াছিলেন, তঁাহারা ইহার প্রত্যেক কাহিনী লইয়া আত্মমত সমর্থনের চেষ্টা পাইতে লাগিলেন। গভর্ণর প্রমুখ সদস্যগণ জানিতেন যে, এ সময়ে অর্থসংগ্ৰহ করা কত প্ৰয়োজন ; সুতরাং তঁহার কোনরূপ প্ৰতিবাদ করিলেন না । বরং গভর্ণর ভ্যান্সিটার্ট স্পষ্টই বলিয়া উঠিলেন,-কাসিম আলি দেশের দণ্ডমুণ্ডের কৰ্ত্তা, এ দেশ তাহারই ;-তিনি কিরূপে অর্থ সংগ্ৰহ করিতেছেন, বিদেশীয় বণিক-সমিতি তাহার ছিদ্রানুসন্ধান করিবার কে ? মীর জাফরের শাসন-সময় হইতে ইংরাজেরাই এ দেশের সৰ্বেসৰ্বা হইয়া উঠিয়াছিলেন ; রাজ্যশাসনের প্রত্যেক কাৰ্য্যে তঁাহারা হস্তক্ষেপ করিতে আরম্ভ করিয়াছিলেন ; তাহারাই বুঝিয়াছিলেন, এবং লোকেও জানিয়াছিল-ইংরাজেরাই প্ৰকৃত শাসনকৰ্ত্তা । মীর জাফর ইহা প্ৰকারান্তরে স্বীকার করিয়া লইয়াছিলেন । কাসিম আলি এই বিশ্বাস দূর করিয়া মোগল সিংহাসন স্বাধীন করিবার জন্য অগ্রসর ; সুতরাং ইংরাজ গভর্ণর যখন স্পষ্টাক্ষরে বলিয়া উঠিলেন-মীর কাসিমই দণ্ডমুণ্ডের কৰ্ত্তা ; তিনি কিরূপে রাজকাৰ্য্য সম্পাদনা করিতেছেন, বিদেশীয় বণিক-সমিতি তাহার ছিদ্রানুসন্ধানের অধিকারী নহে-তখন কাসিম আলির পথ সহজ হইয়া উঠিল। পলাশীর যুদ্ধের পর ইংরাজশক্তি শনৈ: শনৈঃ বাংলা-বিহার-উড়িষ্যার শাসনমার্গে যে কয়েক পদ অগ্রসর DBBDD DDBu DDBDBBD DBDDD S BDD DB KBDS BBt আলি এইরূপ সুযোগ লাভ করিয়া, আপনাকে সর্বাংশে স্বাধীন ও