পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/২১৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পরিশেষ আলেখ্য তোরে আমি রচিয়াছি রেখায় রেখায় লেখনীর নটনলেখায় । নির্বাকের গুহা হাতে আনিয়াছি নিখিলের কাছাকাছি, যে সংসারে হতেছে বিচার নিন্দা-প্ৰশংসার । আছে কি নালিশ তোর রচয়িতা আমার উপরে । অব্যক্ত আছিলি যাবে বিশ্বের বিচিত্ররূপ চলেছিল নানা কলরবে: নানা ছন্দো লয়ে সৃজনে প্রলয়ে । অপেক্ষা করিয়া ছিলি শূন্যে শূন্যে, কবে কোন গুণী নিঃশব্দ ক্ৰন্দন তোর শুনি সীমায় বঁাধিবে তোরে সাদায় কালোয় আঁধারে আলোয় । পথে আমি চলেছিনু । তোর আবেদন করিল ভেদন নাস্তিত্বের মহা-অন্তরাল, পরশিল মোর ভাল চুপে চুপে অর্ধস্মৃটি স্বপ্নমূর্তিরূপে । অমূর্ত সাগরতীরে রেখার আলেখ্যলোকে আনিয়াছি তোকে । ব্যথা কি কোথাও বাজে মূর্তির মর্মের মাঝে । সুষমার অন্যথায় ছন্দ কি লজ্জিত হল অস্তিত্বের সত্য মর্যাদায় । যদিও তাই বা হয় নাই ভয়, প্ৰকাশের ভ্ৰম কোনো চিরদিন রবে না কখনো । রূপের মরণব্ৰুটি আপনিই যাবে টুটি আপনারি ভারে, আরবার মুক্ত হবি দেহহীন অব্যক্তের পারে। S እsዓ