পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/২২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


(செகு জ্যৈষ্ঠ ? ১৩৩০ ] ज८शखe প্ৰাচী জাগো হে প্ৰাচীন প্ৰাচী । ঢেকেছে তোমারে নিবিড় তিমির যুগযুগব্যাপী আমারজনীর ; মিলেছে তোমার সুপ্তির তীর লুপ্তির কাছাকাছি । জাগো হে প্ৰাচীন প্ৰাচী । জীবনের যত বিচিত্র গান বিত্ৰিমন্ত্রে হল অবসান ; কবে আলোকের শুভ আহবান নাউীতে উঠিবে নাচি । জাগো হে প্ৰাচীন প্ৰাচী । সঁপিবে তোমারে নবীন বাণী কে । নব প্ৰভাতের পরশমনিকে সোনা করি দিবে। ভুবনখানিকে, তারি লাগি বসি আছি । জাগো হে প্ৰাচীন প্ৰাচী । জরার জড়িমা-আবরণ টুটে নবীন রবির জ্যোতির মুকুটে নব রূপ তব উঠুক-না। ফুটে, করপুটে এই যাচি । জাগো হে প্ৰাচীন প্ৰাচী । “ খোলো খোলো দ্বার, ঘুচুক আঁধার”, নবযুগ আসি ডাকে বার বারদুঃখ-আঘাতে দীপ্তি তোমার সহসা উঠুক বাচি । জাগো হে প্ৰাচীন প্ৰাচী । ভৈরবরাগে উঠিয়াছে তান, ঈশানের বুঝি বাজিল বিষাণ, নবীনের হাতে লাহে তব দান জ্বালাময় মালাগাছি । জাগো হে প্ৰাচীন প্ৰাচী । QSS