পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/২৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পুনশ্চ কিন্তু তুমি আমাকে বিশ্বাস করেছিলে প্ৰাণের টানে সেই বিশ্বাসকে কিছু পাথেয় দিয়ে যাব এই ইচ্ছা । যেন গর্ব করে বলতে পার আমি তোমাদেরও বটে, এই বেদনা মনে নিয়ে নেমেছি। এই কালে এমন সময় পিছন ফিরে দেখি তুমি নেই। তুমি গেলে সেইখানেই যেখানে আমার পুরোনো কাল অবগুষ্ঠিত মুখে চলে গেল, যেখানে পুরাতনের গান রয়েছে চিরন্তন হয়ে । যেখানে আজি আছে কাল নেই । Ve VOSOD খোয়াই পশ্চিমে বাগান বন চাষা-খেত মিলে গেছে দূর বানান্তে বেগনি বাস্পরেখায় ; মাঝে আম জাম তাল তেঁতুলে সঁওতালপাড়া ; পাশ দিয়ে ছায়াহীন দীর্ঘ পথ গেছে বেঁকে রাঙা পাড় যেন সবুজ শাড়ির প্রান্তে কুটিল রেখায় । হঠাৎ উঠেছে এক-একটা যুথভ্ৰষ্ট তালগাছ, দিশাহারা অনির্দিষ্টকে যেন দিক দেখাবার ব্যাকুলতা । তারি এক ধারে ছেদ পড়েছে উত্তর দিকে, মাটি গেছে ক্ষীয়ে, দেখা দিয়েছে। উমিল লাল কাকরের নিস্তাৱন্ধ তোলপাড়মাঝে মাঝে মরচে-ধরা কালো মাটি মহিষাসুরের মুণ্ড যেন । পৃথিবী আপনার একটি কোণের প্রাঙ্গণে বর্ষাধারার আঘাতে বানিয়েছে। ছোটাে ছোটো অখ্যাত খেলার পাহাড়, বয়ে চলেছে তার তলায় তলায় নামহীন খেলার নদী । । শরৎকালে পশ্চিম-আকাশে সূর্যাস্তের ক্ষণিক সমারোহে রঙের সঙ্গে রঙের ঠেলা ঠেলি br1 \\ SS)