পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/২৬৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S8 br রবীন্দ্ৰ-রচনাবলী दोनों ময়ূরাক্ষী নদীর ধারে আমার পোষা হরিণে বাছুরে যেমন ভাব তেমনি ভাব শালবনে আর মহুয়ায় । ওদের পাতা করছে গাছের তলায়, উড়ে পড়ছে আমার জানালাতে । তারি। চোরাই ছায়া ফেলে আমার দেয়ালে । নদীর ধারে ধারে পায়ে-চলা পথ রাঙা মাটির উপর দিয়ে, কুড়িচির ফুল ঝরে তার ধুলোয় ; বাতাবি-লেবু-ফুলের গন্ধ ...t ঘনিয়ে ধরে বাতাসকে ; জারুল পলাশ মাদারে চলেছে রেষারেষি ; চামেলি লতিয়ে গেছে বেড়ার গায়ে গায়ে ময়ূরাক্ষী নদীর ধারে । নদীতে নেমেছে ছোটো একটি ঘাট লাল পাথর বাধানো । তারি এক পাশে অনেক কালের চাপাগাছ, মোটা তার গুড়ি । জুই বেল রজনীগন্ধা শ্বেতকরবী । গভীর জল মাঝে মাঝে, নীচে দেখা যায় নুড়িগুলি । সেইখানে ভাসে রাজহংস আমার পাটল রঙের গাই গোরুটি আর মিশোল রঙের বাছুর ময়ূরাক্ষী নদীর ধারে । ঘরের মেঝেতে ফিকে নীল রঙের জাজিম পাতা খয়েরি রঙের-ফুল-কাটা । দেয়াল বসতী রঙের, তাতে ঘন কালো রেখার পাড় । একটুখানি বারান্দা পুবের দিকে, সেইখানে বসি সূর্যোদয়ের আগেই ।