পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৩৮২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Vog রবীন্দ্র-রচনাবলী ফাগুলাল । ঘরের রাস্তা বন্ধ, জানি না বুঝি ? be so (, ফাগুলাল । আমাদের ঘর নিয়ে ওদের কোনো মুনফগ নেই। চন্দ্ৰা । আমরা কি ওদের দরকারের গায়ে আঁটি করে লাগানো, যেন ধানের গায়ে তুষ ? ফালতো কিছুই GFS ফাগুলাল । আমাদের বিশুপাগল বলে, আস্ত হয়ে থাকাটা কেবল পাঠার নিজের পক্ষেই দরকার ; যারা তাকে খায়, তার হাড়গোড় খুরলেজ বাদ দিয়েই খায় । এমনকি, হাড়কাঠের সামনে তারা যে ভ্যা করে ডাকে, সেটাকেও বাহুল্য বলে আপত্তি করে। ঐ-যে বিশুপাগল গান গাইতে গাইতে আসছে। চন্দ্ৰা । কিছুদিন থেকে হঠাৎ ওর গান খুলে গেছে। ফাগুলাল । তাই তো দেখছি । চন্দ্ৰা । ওকে নন্দিনীতে পেয়েছে, সে ওর প্রাণ টেনেছে, গানও টেনেছে । ফাগুলাল । তাতে আর আশ্চৰ্যটা কী । চন্দ্ৰা । না, আশ্চর্য কিছুই নেই। ওগো সাবধান থেকে, কোন দিন তোমারও গলা থেকে গান বের করবে- সেদিন পাড়ার লোকের কী দশা হবে । মায়াবিনী মায়া জানে। বিপদ ঘটাবে। ফাগুলাল । বিশুর বিপদ আজ ঘটে নি, এখানে আসবার অনেক আগে থাকতেই ও নন্দিনীকে জানে । চন্দ্ৰা । বিশুবেয়াই, শুনে যাও, শুনে যাও । যাও কোথায় । গান শোনাবার লোক এখানেও এক-আধজন মিলতে পারে, নিতান্ত লোকসান হবে না । বিশুর প্রবেশ ও গান মোর স্বপনতরীর কে তুই নেয়ে ! লাগল পালে নেশার হাওয়া, pe 9sia bOT ( उाभांश फूनिंग्रफ्रिकाश या তোর দুলিয়ে দিয়ে না, তোর সুদূর ঘাটে চল রে বেয়ে । চন্দ্ৰা । তবে তো আশা নেই, আমরা-যে বড়ো কাছে । বিশু । আমার ভাবনা তো সব মিছে, আমার সব পড়ে থাক পিছে। তোমার ঘোমটা খুলে দাও, তোমার নয়ন তুলে চাও, দাও হাসিতে মোর পরান ছেয়ে । চন্দ্ৰা । তোমার স্বপনতরীর নেয়েটি কে সে আমি জানি । বিশু । বাইরে থেকে কেমন করে জানবে । আমার তরীর মাঝখান থেকে তাকে তো দেখ নি । চন্দ্ৰা । তরী ডোবাবে একদিন বলে দিলুম, তোমার সেই সাধের নন্দিনী । গোকুল খোদাইকরের প্রবেশ গোকুল । দেখো বিশু, তোমার ঐ নন্দিনীকে ভালো ঠেকছে না। বিশু । কেন, কী করেছে। গোকুল । কিছুই করে না, তাই তো খটকা লাগে । এখানকার রাজা খামােকা ওকে আনালে কেন । ওর রকমসকম কিছুই বুঝি নে ।