পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৪২৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা 8ひ& শৈলবালা । মুখুজেমশায়, তুমি তাদের কী বানর বানিয়েই ছেড়ে দিলে— শেষ কালে বেচারাদের জন্যে আমার মায়া করছিল । অক্ষয় । বানর কেউ বানাতে পারে না শৈল, ওটা পরমা প্রকৃতি নিজেই বানিয়ে রাখেন। ভগবানের বিশেষ অনুগ্রহ থাকা চাই। যেমন কবি হওয়া আর-কি। লেজই বল কবিত্বই বল ভিতরে না থাকলে জোর করে টেনে বের করবার জো নেই । পুরবালার প্রবেশ পুরবালা । (কেরোসিন ল্যাম্পটা লইয়া নাড়িয়া-চাড়িয়া) বোহারা কিরকম আলো দিয়ে গেছে, মিটমিট করছে । ওকে বলে বলে পারা গেল না । অক্ষয় । সে বেটা জানে কিনা অন্ধকারেই আমাকে বেশি মানায় । পুরবালা । আলোতে মানায় না ? বিনয় হচ্ছে নাকি । এটা তো নতুন দেখছি। অক্ষয় । আমি বলছিলুম, বেহারিা বেটা চাদ বলে আমাকে সন্দেহ করেছে। পুরবালা । ওঃ, তাই ভালো । তা, ওর মাইনে বাড়িয়ে দাও ।— কিন্তু রসিকদাদা, আজ কী কাণ্ডটাই করলে ।

  • ঢের পাওয়া যায়, কিন্তু সবাই বিবাহযোগ্য হয় না, সেইটের একটা সামান্য উদাহরণ গেলুম | পুরবালা । সে উদাহরণ না দেখিয়ে দুটাে-একটা বিবাহযোগ্য বরের উদাহরণ দেখালেই তো ভালো झूठ ।

শৈলবালা । সে ভার আমি নিয়েছি দিদি । পুরবালা । তা আমি বুঝেছি। তুমি আর তোমার মুখুজেমশায় মিলে কি দিন ধরে যেরকম পরামর্শ চলছে একটা কী কাণ্ড হবেই। অক্ষয় । কিষ্কিন্ধ্যাকাণ্ড তো আজ হয়ে গেল । রসিক । লঙ্কাকাণ্ডের আয়োজনও হচ্ছে, চিরকুমার-সভার স্বৰ্ণলঙ্কায় আগুন লাগাতে চলেছি। পুরবালা । শৈল তার মধ্যে কে । রসিক । হনুমান তো নয়ই। অক্ষয় । উনিই হচ্ছেন্ন স্বয়ং আগুন । রসিক । এক ব্যক্তি ওঁকে লেজে করে নিয়ে যাবেন । পুরবালা । আমি কিছু বুঝতে পারছি নে। শৈল, তুই চিরকুমার-সভায় যাবি নাকি । শৈলবালা । আমি যে সভ্য হব | পুরবালা । কী বলিস তার ঠিক নেই। মেয়েমানুষ আবার সভ্য হবে কী । প্রবালা। আজকাল মেঘেরাও যে সভ্য হয়ে উঠেছে। তাই আমি শাড়ি ছেড়ে চাপকন ধরব ঠিক T | পুরবালা । বুঝেছি, ছদ্মবেশে সভ্য হতে যাচ্ছিস বুঝি । চুলটা তো কেটেইছিস, ঐটেই বাকি ছিল। তোমাদের যা খুশি করো, আমি এর মধ্যে নেই। অক্ষয় । না না, তুমি এ দলে ভিড়ো না। আর যার খুশি পুরুষ হােক, আমার অদৃষ্ট তুমি চিরদিন মেয়েই থেকো— নইলে শ্ৰীচ অফ কনট্রাক্ট- সে বড়ো ভয়ানক মকদ্দমা— 하iR চিরদিবস এমনি থেকে আমার এই সাধ ।