পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৪৮৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা 8V শ্ৰীশ । আচ্ছা রসিকবাবু, তিনি নিজের হাতে ঘরের সমস্ত কাজ করেন ? শৈলবালার প্রবেশ শৈলবালা । রসিকদার সঙ্গে কী পরামর্শ করছেন । রসিক । কিছুই না, নিতান্ত সামান্য কথা নিয়ে আমাদের আলোচনা চলছে, যত দূর তুচ্ছ হতে পারে। চন্দ্র । সভা অধিবেশনের সময় হয়েছে আর বিলম্ব করা উচিত হয় না। পূৰ্ণবাবু, কৃষিবিদ্যালয় সম্বন্ধে আজ তুমি যে প্রস্তাব উত্থাপন করবে বলেছিলে সেটা আরম্ভ করো। পূর্ণ। (দণ্ডায়মান হইয়া ঘড়ির চেন নাড়িতে নাড়িতে) আজ— আজি— (কাশি) রসিক । (পাৰ্থে বসিয়া মৃদুস্বরে) আজ এই সভা পূর্ণ। আজ এই সভা— রসিক । যে নুতন সৌন্দর্য এবং গীেরব লাভ করিয়াছেপূর্ণ। যে নুতন সৌন্দর্য এবং গৌরব লাভ করিয়াছে— রসিক । প্ৰথমে তাহারই জন্য অভিনন্দন প্ৰকাশ না করিয়া থাকিতে পারিতেছি না । পূর্ণ। প্ৰথমে তাঁহারই জন্য অভিনন্দন প্রকাশ না করিয়া থাকিতে পারিতেছি না। রসিক । (মৃদুস্বরে) বলে যান পূৰ্ণবাবু। পূর্ণ। তাঁহারই জন্য অভিনন্দন প্রকাশ না করিয়া থাকিতে পারিতেছি না। রসিক । ভয় কী পূৰ্ণবাবু, বলে যান। পূর্ণ। যে নুতন সৌন্দর্য এবং গীেরব (কাশি)- যে নুতন সৌন্দৰ্য (পুনরায় কাশি) অভিনন্দনরসিক । (উঠিয়া) সভাপতিমশায়, আমার একটা নিবেদন আছে। আজ পূৰ্ণবাবু সকল সভ্যের-পূর্বেই সভায় উপস্থিত হয়েছেন । উনি অত্যন্ত অসুস্থ, তথাপি উৎসাহ সংবরণ করতে পারেন নি। আজ আমাদের সভায় প্ৰথম অরুণোদয়, তাই দেখবার জন্যে পাখি প্ৰত্যুষেই নীড় পরিত্যাগ করে বেরিয়েছে। কিন্তু দেহ রুগণ, তাই পূর্ণহীদয়ের আবেগ কষ্ঠে ব্যক্ত করবার শক্তি নেই, অতএব ওঁকে আজ আমাদের নিকৃতি দান । করতে হবে । এবং আজ নবপ্ৰভাতের যে অরুণচ্ছটার স্তবগান করতে উনি উঠেছিলেন তার কাছেও এই অবরুদ্ধকণ্ঠ ভক্তের হয়ে আমি মার্জনা প্রার্থনা করি । পূৰ্ণবাবু, আজ বরঞ্চ আমাদের সভার কার্য বন্ধ থাকে সেও ভালো, তথাপি বর্তমান অবস্থায় আজ। আপনাকে কোনো প্ৰস্তাব উত্থাপন করতে দিতে পারি। নে । সভাপতিমশায় ক্ষমা করবেন এবং আমাদের সভাকে যিনি আপন প্ৰভা দ্বারা অদ্য সার্থকতা দান করতে এসেছেন ক্ষমা করা তাদের স্বজাতিসুলভ করুণ হৃদয়ের সহজ ধর্ম। চন্দ্ৰবাবু। আমি জানি কিছুকাল থেকে পূৰ্ণবাবু ভালো নেই, এ অবস্থায় আমরা ওঁকে ক্লেশ দিতে পারি না। বিশেষত অবলাকাস্তবাবু ঘরে বসে বসেই আমাদের সভার কাজ অনেক দূর অগ্রসর করে দিয়েছেন। এ-পর্যন্ত ভারতবর্ষীয় কৃষি সম্বন্ধে গবর্মেন্ট থেকে যতগুলি রিপোর্ট বাহির হয়েছে সবগুলি আমি ওঁর কাছে দিয়েছিলেম, তার থেকে উনি জমিতে সারা দেওয়া সম্বন্ধীয় অংশটুকু সংক্ষেপে সংকলন করে রেখেছেনসেইটি অবলম্বন করে উনি সর্বসাধারণের সুবোধ্য বাংলা ভাষায় একটি পুস্তিকা প্ৰণয়ন করতেও প্ৰস্তুত হয়েছেন। ইনি যেরূপ উৎসাহ ও দক্ষতার সঙ্গে সভার কার্যে যোগদান করেছেন সেজন্য ওঁকে প্রচুর ধন্যবাদ দেওয়া উচিত । বিপিনবাবু য়ুরোপীয় ছাত্রাগার-সকলের নিয়ম ও কার্যপ্ৰণালী-সংকলনের ভার নিয়েছিলেন । এবং শ্ৰীশবাবু স্বেচ্ছাকৃত দানের দ্বারা লন্ডন নগরে কত বিচিত্র লোকহিতকর অনুষ্ঠান প্রবর্তিত হয়েছে তার তালিকা সংগ্রহ ও তৎসম্বন্ধে একটি প্ৰবন্ধ-রচনায় প্রতিশ্রুত হয়েছিলেন- বোধ হয় এখনো তা সমাধা করতে পারেন নি। আমি একটি পরীক্ষায় প্রবৃত্ত আছি- সকলেই জানেন আমাদের দেশের গোরুর গাড়ি এমন ভাবে নির্মিত যে তার পিছনে ভার পড়লেই উঠে পড়ে এবং গোরুর গলায় ফাস লেগে যায়, আবার কোনো কারণে গোরু যদি পড়ে যায়। তবে বোঝাই সুদ্ধ গাড়ি তার ঘাড়ের উপর গিয়ে পড়ে- এরই প্রতিকার করবার জন্যে আমি উপায়-উদ্ভাবনে ব্যস্ত আছি, কৃতকার্য হব বলে আশা করি। আমরা মুখে গোজাতি সম্বন্ধে দয়া প্ৰকাশ করি, অথচ প্ৰত্যহ সেই গোরুর সহস্ৰ অনাবশ্যক কষ্ট নিতান্ত উদাসীনভাবে