পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৪৯৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা 8 V দিনের পরে দিন কেটে যায় সুন্দর হে । মরে হৃদয় কোনপিপাসায় সুন্দর হে। শূন্য ঘাটে আমি কী যে করি, রঙিন পালে কবে আসবে তরী পাড়ি দেব কবে সুধারসের পারাবারে সুন্দর হে। ভূত্যের প্রবেশ ভূত্য । একটি বাবু এসেছেন। বিপিন। বাবু ? কিরকম বাবু রে । ভূত্য । বুড়ো লোকটি । বিপিন । মাথায় টাক আছে ? ভূত্য আছে । বিপিন । (তানপুরা রাখিয়া) নিয়ে আয়, এখনই নিয়ে আয় । ওরে ওরে, তামাক দিয়ে যা । বেহারিাটা কোথায় গেল, পাখা টানতে বলে দে । আর দেখ, চট করে গোটাকতক মিঠে পানের দোনা কিনে আন তো রে। দেরি করিস নে, আর আধ সের বরফ নিয়ে আসিস- বুঝেছিস ? (পদশব্দ শুনিয়া) রসিকবাবু, আসুন । বনমালীর প্রবেশ বিপিন । রসিকবাবু- এ যে সেই বনমালী ! বৃদ্ধ । আজ্ঞে হী, আমার নাম শ্ৰীবনমালী ভট্টাচার্য। বিপিন । সে পরিচয় অনাবশ্যক । আমি একটু বিশেষ কাজে আছি । বনমালী । মেয়েদুটিকে আর রাখা যায় না- পাত্রও অনেক আসছে— বিপিন । শুনে খুশি হলেম— দিয়ে ফেলুন, দিয়ে ফেলুনবনমালী । কিন্তু আপনাদেরই ঠিক উপযুক্ত হত— বিপিন । দেখুন বনমালীবাবু, এখনো আপনি আমার সম্পূর্ণ পরিচয় পান নি- যদি একবার পান তা হলে আমার উপযুক্ততা সম্বন্ধে আপনার ভয়ানক সন্দেহ হবে । বনমালী । তা হলে আমি উঠি, আপনি ব্যস্ত আছেন, আর-এক সময় আসব। বিপিন । (তানপুরা তুলিয়া লইয়া) সারেগা রেগামা গামাপা শ্ৰীশের প্রবেশ শ্ৰীশ । কী হে বিপিন, একি । কুস্তি ছেড়ে দিয়ে গান ধরেছ ? গুরুদাস যে ? বিপিন । ওস্তাদজি, আজ ছুটি । কী করব বলো, গান না শিখলে তো আর তোমার সন্ন্যাসীদলে আমল পাওয়া যাবে না । গুরুদাসকে গুরু মেনেছি। ওর কাছে নবীন-সন্ন্যাস-ব্ৰিতের দীক্ষা নিচ্ছি। শ্ৰীশ । সে কিরকম । বিপিন । রস ভরে উঠলে তবেই তো ত্যাগ সহজ হয় । মেঘ যখন জলে ভারী হয় তখনই জল বর্ষণ করে । শ্ৰীশ । রাখো তোমার নতুন ফিলসফি, কুমার-সভার সেই লেখাটায় হাত দিতে পেরেছ ? বিপিন । না ভাই, সেটাতে এখনো হাত দিতে পারি নি। তোমার লেখাটি হয়ে গেছে নাকি । শ্ৰীশ । না, আমিও হাত দিইনি। (কিয়ৎক্ষণ চুপ করিয়া থাকিয়া) না ভাই, ভারি অন্যায় হচ্ছে। ক্রমেই আমরা আমাদের সংকল্প থেকে যেন দূরে চলে যাচ্ছি। [ভূত্যের প্রস্থান