পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৫০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Vbr Ss 55 SS Str মুছিয়াছে নীলাম্বর বাষ্পপসিক্ত চোখ বন্ধমুক্ত নির্মল আলোক । বনলক্ষ্মী শুভব্ৰতা শুভের ধেয়ানে তার মেলিয়াছে অম্লান শুভব্ৰতা আকাশে আকাশে শেফালি মালতী কুন্দে কাশে । অপ্ৰগলভা ধরিত্রী-সে। প্ৰণামে লুষ্ঠিত, অপ্ৰগলভা ধরিপূজারিনী নিরবগুষ্ঠিত, আলোকের আশীর্বাদে শিশিরের মানে দাহহীন শান্তি তার প্রাণে । দিগন্তের পথ বাহি শগুন্যে চাহি রিক্তবিত্ত শুভ্ৰ মেঘ সন্ন্যাসী উদাসীগৌরীশঙ্করের তীর্থে চলিয়াছে ভাসি । সেই স্নিগ্ধক্ষণে, সেই স্বচ্ছ সূৰ্যকরে, পূৰ্ণতায় গভীর অম্বরে - তাহারে দেখিব যারে চিত্ত চাহে, চক্ষু নাহি জানে । সাগরিকা সাগরজলে সিনান করি সজল এলোচুলে বসিয়াছিলে উপল—উপকুলে । শিথিল পীতবাস মাটির পরে কুটিলরেখা লুটিল চারি পাশ । নিরাবরণ বক্ষে তব, নিরাভরণ দেহে চিকন সোনা-লিখন উষা ভীমাকিয়া দিল মোহে । মকর চুড় মুকুটখানি পরিা ললাট-’পরে ধনুক,বাণ ধরি দখিন করে, দাড়ানু রাজবেশীকহিনু, “আমি এসেছি। পরদেশী ।” চমকি ত্ৰাসে দাড়ালে উঠি শিলা-আসন ফেলে, শুধালে, “কেন এলে ।” কহিনু আমি, ‘রেখো না ভয় মনে, পূজার ফুল তুলিতে চাহি তোমার ফুলবনে ৷” চলিলে সাথে, হাসিলে অনুকুল, তুলিনু যুখী, তুলিনু জাতী, তুলিনু চাপা ফুল ।