পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৫০১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা 8Գծ সাধারণ লোকের জন্য নহে- তাহাতে বল দান করে না, বল হরণ করে। স্ত্রী পুরুষ পরস্পরের দক্ষিণ হস্ত- তাহারা মিলিত থাকিলে তবেই সম্পূর্ণরূপে সংসারের সকল কাজের উপযোগী হইতে পারে।” তোমার কী মনে হয় নির্মল । (নির্মলা নিরুত্তর) অক্ষয়বাবুও এই কথা নিয়ে সেদিন আমার সঙ্গে তর্ক করছিলেন- ‘তার অনেক কথার উত্তর দিতে পারি নি । নির্মলা । তা, হতে পারে । বোধ হয় কথাটার মধ্যে অনেকটা সত্য আছে। চন্দ্ৰবাবু। “গৃহস্থসন্তানকে সন্ন্যাসধর্মে দীক্ষিত না করিয়া গৃহাশ্রমকে উন্নত আদর্শে গঠিত করাই আমার মতে শ্রেষ্ঠ কর্তব্য ।” নির্মলা । এ কথাটা কিন্তু পূৰ্ণবাবু বেশ বলেছেন। চন্দ্ৰবাবু। আমিও কিছুদিন থেকে মনে করছিলেম কুমারব্রত গ্রহণের নিয়ম উঠিয়ে দেব। নির্মলা । আমারও বোধ হয় উঠিয়ে দিলে মন্দ হয় না। কী বল মামা। অন্য কেউ কি আপত্তি করবেন। অবলাকান্তবাবু, শ্ৰীশবাবু চন্দ্ৰবাবু। আপত্তির কোনো কারণ নেই। নির্মলা । তবু একবার অবলাকান্তবাবুদের মত নিয়ে দেখা উচিত। চন্দ্রবাবু । মত তো নিতেই হবে। (পত্ৰিপাঠ) “এ পর্যন্ত যাহা লিখিলাম সহজে লিখিয়াছি, এখন যাহা বলিতে চাহি তাহা লিখিতে কলম मब्रिड कां ।' নির্মলা । মামা, পূর্ণবাবু হয়তো কোনো গোপনীয় কথা লিখছেন, তুমি চেচিয়ে পড়ছ কেন । চন্দ্ৰবাবু। ঠিক বলেছ ফেনি। (আপন মনে পাঠ) কী আশ্চর্য, আমি কি সকল বিষয়েই অন্ধ। এতদিন তো। আমি কিছুই বুঝতে পারি নি। নির্মল, পূৰ্ণবাবুর কোনো ব্যবহার কি কখনো তোমার কাছে— নির্মলা । হা, পূৰ্ণবাবুর ব্যবহার আমার কাছে মাঝে মাঝে অত্যন্ত নির্বোধের মতো ঠেকেছিল। মাৰু? অথচ পূর্বাবু গুণ বৃদ্ধিমান। তা হলে তােমাকে স্কুল বলি-পূর্বত্ব বিবাহের প্রস্তাব করে নির্মলা । তুমি তো তার অভিভাবক নও, তোমার কাছে প্রস্তাব চন্দ্রবাবু। আমি যে তোমার অভিভাবক, এই পড়ে দেখো নির্মলা । (পত্ৰ পড়িয়া রক্তিমমুখে) এ হতেই পারে না। চন্দ্ৰবাবু। আমি তাকে কী বলব। নির্মলা । বোলো, কোনোমতে হতেই পারে না । মুহূরেন নির্ম, তুমি তাে বলছিল কুমারত-পালনের দিয়ে সম্ভ হতে উঠিয়ে দিতে তােমার নির্মলা । তাই বলেই কি যে প্ৰস্তাব করবে। তাকেই— চন্দ্ৰবাবু। পূৰ্ণবাবু তো যে-সে নয়, অমন ভালো ছেলে নির্মলা । মামা, তুমি এ-সব বিষয়ে কিছুই বোঝা না, তোমাকে বোঝাতে পারবও না- আমার কাজ TNICS [প্ৰস্থানোদ্যম মামা, তোমার পকেটে ওটা কী উচু হয়ে আছে। চন্দ্ৰবাবু। (চমকিয়া উঠিয়া) হাঁহী, ভুলে গিয়েছিলেম, বেহারিা আজ সকালে তোমার নামে লেখা একটা । কাগজ আমাকে দিয়ে গেছে নির্মলা । (তাড়াতাড়ি কাগজ লইয়া) দেখো দেখি মামা, কী অন্যায়, অবলাকান্তবাবুর লেখাটা সকালেই এসেছে, আমাকে দাও নি। আমি ভাবছিলেম। তিনি হয়তো ভুলেই গেছেন । ভারি অন্যায়। চন্দ্ৰবাবু। অন্যায় হয়েছে বটে । কিন্তু এর চেয়ে ঢের বেশি অন্যায়। ভুল আমি প্রতি দিনই করে থাকি ফেনি- তুমিই তো আমাকে প্রত্যেক বার মাপ করে প্রশ্ৰয় দিয়েছ। brll७s