পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৭২০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


\bbr রবীন্দ্র-রচনাবলী ‘শালী কবিতার ভূমিকায় ‘কিশোর কবিবন্ধু বলিয়া যাহার উল্লেখ আছে তিনি পরলোকগত কবি সতীশচন্দ্র রায় (১২৮৮-১৩১০)* । বৃক্ষরোপণ্য-উৎসব শান্তিনিকেতনে প্রথম অনুষ্ঠিত হয় ৩০ আষাঢ় ১৩৩৫ সালে (১৪ জুলাই ১৯২৮) । প্ৰতিমা ঠাকুরকে একটি পত্রে (৯ শ্রাবণ ১৩৩৫)** রবীন্দ্রনাথ প্ৰথমবারের উৎসবের সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিয়াছেন : --- এখানে হল বৃক্ষরোপণ, শ্ৰীনিকেতনে ইল হলচালন - তোমার টবের বকুলগাছটাকে নিয়ে বৃক্ষরোপণ অনুষ্ঠানটা হল । পৃথিবীতে কোন গাছের এমন সৌভাগ্য কল্পনা করতে পার না । সুন্দরী বালিকারা সুপরিচ্ছন্ন হয়ে শাখ বাজাতে বাজাতে গান গাইতে গাইতে গাছের সঙ্গে সঙ্গে যজ্ঞক্ষেত্রে এল— শাস্ত্রীমশায় সংস্কৃত শ্লোক আওড়ালেন— আমি একে একে ছটা কবিতা পড়লুম- মালা দিয়ে চন্দন দিয়ে ধূপধুনো জ্বালিয়ে তার অভ্যর্থনা হল - তার পরে বর্ষামঙ্গল গান হল— আমি এই উপলক্ষে ছোটাে একটি গল্প ** লিখেছিলুম, সেটা পড়লুম। আমার বেশভূষা দেখলে নিশ্চয় খুশি হতে । একটা কালো রেশমের ধুতি, গায়ে লাল আঙিয়া, মাথায় কালো টুপি, কঁাধে জরিদেওয়া কালো পাড়ের কেঁচানো লম্বা চাদর -- এই অংশের কতকগুলি গীতিকবিতার রচনাকাল অতঃপর দেওয়া গেল— আয় আমাদের অঙ্গনে । শান্তিনিকেতন, ২। শ্রাবণ ১৩৩৬ বক্ষের ধন হে ধরণী, ধরে । [জুলাই ১৯২৮] হে মেঘ, ইন্দ্রের ভেরী । [জুলাই ১৯২৮] সৃষ্টির প্রথম বাণী তুমি, হে আলোক । [জুলাই ১৯২৮] হে পাবন করা নাই গৌণ । [জুলাই ১৯২৮] আকাশ তোমার সহাসি উদার দৃষ্টি । [জুলাই ১৯২৮] প্ৰাণের পাথেয়। তব পূর্ণ হােক । খসড়া : ১৩ জুলাই ১৯২৮ পরিশেষ পরিশেষ ১৩৩৯ সালের ভাদ্র মাসে গ্রন্থাকারে প্রকাশিত হয় । খেলনার মুক্তি, পত্ৰলেখা, খ্যাতি, বাঁশি, উন্নতি, ভীরু- পরিশেষের এই ছয়টি কবিতা পুনশ্চ গ্রন্থের দ্বিতীয় সংস্করণে গৃহীত হইয়াছে বলিয়া পরিশেষের বর্তমান সংস্করণে বর্জিত হইল। কবিতাগুলি রচনাবলী-সংস্করণে “পুনশ্চ’ গ্রন্থের (প্রচলিত ষোড়শ খণ্ড, সুলভ বর্তমান খণ্ড) অন্তর্ভুক্ত হইয়াছে । রবীন্দ্রভবনে রক্ষিত পাণ্ডুলিপি হইতে অনেক কবিতার রচনাস্থান নির্দিষ্ট হইয়াছে, এবং তারিখ ও পাঠ সংশোধিত বা পরিবর্তিত হইয়াছে । ‘বিচিত্ৰা” কবিতাটির একটি স্বতন্ত্র পাঠ নিম্নে মুদ্রিত হইল । frissa চুরি করে নিয়ে গেলে মোর মন কোন শিশুকালে, হে বিচিত্রা, বাধি মায়াজালেবস্তুর আড়ালে যেথা দিনরাত্ৰি সাজাইছ তুমি তোমার রঙের রঙ্গভূমি । আকাশে ছড়ায়ে কেশ বঁশি বাজায়েছ চুপে চুপে, সেই সুরে মোর চক্ষে কত স্বপ্ন অপরূপ রূপে ৯ দ্রষ্টব্য বিচিত্ৰ প্ৰবন্ধ গ্রন্থে “বন্ধুস্মৃতি । ১০। দ্রষ্টব্য চিঠিপত্র, তৃতীয় খণ্ড, পত্র ২৮ । ১১ বলাই, গল্পগুচ্ছ, তৃতীয় খণ্ড ।