পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৭২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গ্ৰন্থপরিচয় করেছে বিচিত্ৰ লীলা ধরণীর ধূলির সীমায়, দিগন্তের দূর নীলিমায় । বৈশাখের খরসূৰ্যকরে আকাশ নিশ্বসি উঠি মধ্যাহ্নের আতন্দ্ৰ আলসে ভরিয়াছে রহস্যের রসে । তৃণাগ্রে শিশিরবিন্দু শরতের শুভ্রতার বাণী কঁাপিত প্ৰভাত আলো বালকের পুলকিত বুকে হে বিচিত্রা, চাহি তব মুখে । ভরে যাবে রাত্রির নিরালা অনিদ্রা নিবিড় করি আনে মধুর সংশয়ে-ছোওয়া শরমের কুহেলিকা আনি হাসির উপরে দিতে টানি । লোকালয়ে ফিরায়েছ সুখদুঃখে নিজে হাত ধরি পথে পথে দিবসশবরী | প্ৰাণের বীণার তন্ত্রে মৃত্যুসুরে তুলেছ স্পন্দন, বাধিয়াছ, ছিড়েছ বন্ধন । মামের বেদনা মোর তোমার আপনি রসদ্ধারে পেয়েছে। সুতীব্ৰ বৰ্ণ, দিয়েছ গভীর অর্থ তারে, মোর নৌকা খেয়া দিতে বারে বারে ঝঙ্কাবায়ু তুলে নিয়ে গেছ অপূর্বের কুলে । সম্ভবতঃ ইহাই প্ৰথম পাঠ । সহসা জ্যৈষ্ঠের শেষরাতে গুরু। গর্জনের সাথে পূর্ববানান্তের শাখে মর্মরিয়া জাগে বায়ুবেগ, ঘন-নীল মেঘ দিগন্তের তটে আনে বর্ষণের নিবিড় আশ্বাসতৃষিত মাটির বক্ষে দৈন্যজীর্ণ ঘাস উল্লাসে তখনি করিয়া অশ্রুত জয়ধবনি থরে থরে ছোটো ছোটো অক্ষরে অক্ষরে ܠܼܬܣܠ কয়েকটি কবিতার পরিশেষ-গ্রন্থে-বর্জিত অনুচ্ছেন্দ পাণ্ডুলিপি বা সাময়িক পত্র হইতে নিম্নে উদধূত হইল :