প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ষোড়শ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/১৯৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা । >bra) শ্ৰীশ । এখানকার সীমানা-রক্ষার জন্য পাকা ইটের দেওয়ালের মতে অচল পদার্থ চাই। ওই পর্দাটা ভালো ঠেকছে না। পূর্ণ। তোমাদের কথাগুলো কিছু রহস্যময় শোনাচ্ছে । | " বিপিন। সে কথা ঠিক । রহস্য পদার্থ টাই সর্বনেশে । চিরকুমারদের সকলের চেয়ে যে বড়ো শত্রু পর্দা-বেষ্টনীর মধ্যেই তার বাস । শ্ৰীশ । আমাদের ব্রত হচ্ছে পর্দাটাকে আক্রমণ করা, তাকে ছিন্ন করে ফেলা । পর্দার ছায়ায় ছায়ায় ফেরে যে মায়ামৃগী আলো ফেললেই মরীচিকণর মতো সে মিলিয়ে যাবে | পূর্ণ। শ্ৰীশবাবু, মরীচিকা মেলাতে পারে, কিন্তু তৃষ্ণ তে মেলায় না। স্ত্রশ। কেন মেলাবে। ওটা থাকা চাই। তৃষ্ণ না থাকলে আমাদের ছোটবে কিসে। কেবল জানা দরকার কোন পথে ছুটলে ফল পাওয়া যাবে। নেপথ্যে গান। ওগো, তোরা কে যাবি পারে । বিপিন। একটু আস্তে। গান শুনতে পাচ্ছ না? খাসা গান বটে। পূর্ণ। ওই গানটাও কি পর্দা নয়। ওর আড়ালে যে রহস্য গা ঢাকা দিয়ে রয়েছে পথে বিপথে ছোটাবার ক্ষমতা তারও আছে । বিপিন। থাক্‌ ভাই। তত্ত্বকথাটা এখন থাক। একটু শুনতে দাও । খুব কাছের বাড়ি থেকেই গানটা আসছে, শুনেছি অক্ষয়বাবুর বাসা ওইখানেই । § শ্রীশ । গানের কথাটা বেশ স্পষ্ট শোনা যাচ্ছে । নেপথ্যে গান ওগে, তোরা কে যাবি পারে । আমি তরী নিয়ে বসে আছি নদী-কিনারে । ও পারেতে উপবনে কত খেলা কত জনে, এ পারেতে ধুধু মরু বারি বিনা রে । এইবেলা বেলা আছে, আয় কে যাবি। মিছে কেন কাটে কাল কত কী ভাবি ৷ সূর্য পাটে যাবে নেমে, সুবাতাস যাবে থেমে, খেয়া বন্ধ হয়ে যাবে সন্ধ্যা-আঁধারে । শ্ৰীশ । গানটা বোধ হচ্ছে যেন কুমার-সভাকেই ভয় দেখাবার গান। খেয়া বন্ধ হয়ে গেলেই তো মুশকিল। -