প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ষোড়শ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২০৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা ᎼᎽ☾ পূর্ণ। ভয় নেই ভাই, এখনও মরিয়া হয়ে উঠি নি। তোমার এই ছাদ-ভরা জ্যোংস্কা আর ওই ফুলের গন্ধ কি কৌমার্ষত্ৰত-রক্ষার সহায়তা করবার জন্যে স্বষ্টি হয়েছে। মনের মধ্যে মাঝে মাঝে যে বাষ্প জমে আমি সেটাকে উচ্ছসিত করে দেওয়াই ভালো বোধ করি ; চেপে রেখে নিজেকে ভোলাতে গেলে কোনদিন চিরকুমারত্ৰতের লোহার বয়ূলারখানা ফেটে যাবে। যাই হোক, যদি সন্ন্যাসী হওয়াই স্থির কর তো আমিও যোগ দেব— কিন্তু আপাতত সভাটাকে তো রক্ষণ করতে হবে । শ্ৰীশ । কেন ? কী হয়েছে ? পূর্ণ। অক্ষয়বাবু আমাদের সভাকে যে স্থানান্তর করবার ব্যবস্থা করছেন, এটা আমার ভালো ঠেকছে না। শ্ৰীশ। সন্দেহ জিনিসটা নাস্তিকতার ছায়া । মন্দ হবে, ভেঙে যাবে, নষ্ট হবে, এ-সব ভাব আমি কোনো অবস্থাতেই মনে স্থান দিই নে। ভালোই হবে, যা হচ্ছে বেশ হচ্ছে, চিরকুমার-সভার উদার বিস্তীর্ণ ভবিষ্যৎ আমি চোখের সম্মুখে দেখতে পাচ্ছি— অক্ষয়বাবু সভাকে এক বাড়ি থেকে অন্য বাড়িতে নিমন্ত্রণ করে তার কী অনিষ্ট করতে পারেন । কেবল গলির এক নম্বর থেকে আর-এক নম্বরে নয়, আমাদের যে পথে-পথে দেশে-দেশে সঞ্চরণ করে বেড়াতে হবে। সন্দেহ শঙ্কা উদ্‌বেগ এগুলো মন থেকে দুর করে দাও পূর্ণবাবু— বিশ্বাস এবং আনন্দ না হলে বড়ো কাজ হয় না। বিপিন । দিনকতক দেখাই যাক-না। যদি কোনো অসুবিধার কারণ ঘটে তা হলে স্বস্থানে ফিরে আসা যাবে— আমাদের সেই অন্ধকার বিবরটি ফস করে কেউ কেড়ে নিচ্ছে না। অকস্মাৎ চত্রমাধববাবুর সবেগে প্রবেশ । তিনজনের সসন্ত্রমে উত্থাম চন্দ্রবাবু। দেখো, আমি সেই কথাটা ভাবছিলুম— শ্ৰীশ। বস্কন । । চন্দ্রবাবু না না, ৰসব না, আমি এখনই যাচ্ছি। আমি বলছিলুম, সন্ন্যাসত্রতের জন্যে আমাদের এখন থেকে প্রস্তুত হতে হবে । হঠাৎ একটা অপঘাত ঘটলে, কিম্বা সাধারণ জরজালায়, কিরকম চিকিৎসা সে আমাদের শিক্ষা করতে হবে— ডাক্তার রামরতনবাবু ফি রবিবারে আমাদের দু ঘণ্টা করে বক্তৃতা দেবেন বন্দোবস্ত করে এসেছি। শ্ৰীশ । কিন্তু, তাতে অনেক বিলম্ব হবে না ? চন্দ্রবাৰু। বিলম্ব তো হবেই, কাজটি তো সহজ নয়। কেবল তাই নয়— আমাদের কিছু কিছু আইন অধ্যয়নও দরকার। অবিচার অত্যাচার থেকে রক্ষা করা এবং কার কতদূর অধিকার সেটা চাষাভূযোদের বুঝিয়ে দেওয়া আমাদের কাজ ।