প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ষোড়শ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৬৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা ૨ઉ (t পূর্ণ। আপনি আমার অন্তরের কথা বুঝে নিয়েছেন রসিকবাবু— আপনাকে পেয়ে আমি বেঁচে গেছি। আমার যা কথা তা মুখে উচ্চারণ করতেও সংকোচ বোধ হয়। আপনি আমাকে পরামর্শ দিন কী করতে হবে। রসিক। প্রথমে আপনি ওঁর কাছে গিয়ে যা হয় একটা কিছু কথা আরম্ভ করে দিন न । পূর্ণ। ওই দেখুন-না, অবলাকাস্তবাবু আবার ওঁর কাছে গিয়ে বসেছেন— রসিক। তা হোক-না,তিনি তো ওঁকে চারি দিকে ঘিরে দাড়ান নি। অবলাকান্তকে তো বৃহের মতো ভেদ করে যেতে হবে না। আপনিও এক পাশে গিয়ে দাড়ানन] ! পূর্ণ। আচ্ছ, আমি দেখি । শৈলবালা । ( নিৰ্মলার প্রতি ) আমাকে এত করে বলবেন না— আপনি আমার চেয়ে ঢের বেশি কাজ করছেন – কিন্তু, বেচারা পূৰ্ণবাবুর জন্যে আমার বড়ো দুঃখ হয় । আপনি আসবেন বলেই উনি আজ বিশেষ উৎসাহ করে এসেছিলেন, অথচ সেট ব্যক্ত করতে না পেরে উনি বোধ হয় অত্যন্ত বিমর্ষ হয়ে পড়েছেন। আপনি যদি ওঁকে— নির্মলা । আপনাদের অন্যান্য সভ্যদের থেকে আমাকে একটু বিশেষভাবে পৃথক করে দেখছেন বলে আমি বড়ো সংকোচ বোধ করছি – আমাকে সভ্য বলে আপনাদের মধ্যে গণ্য করবেন, মহিলা বলে স্বতন্ত্র করবেন না। শৈলবালা । আপনি যে মহিলা হয়ে জন্মেছেন সে সুবিধাটুকু আমাদের সভা ছাড়তে পারেন না । আপনি আমাদের সঙ্গে এক হয়ে গেলে যত কাজ হবে, আমাদের থেকে স্বতন্ত্র হলে তার চেয়ে বেশি কাজ হবে । যে লোক গুণের দ্বারা নৌকোকে । অগ্রসর করে দেবে তাকে নৌকো থেকে কতকটা দূরে থাকতে হয় । চন্দ্রবাবু আমাদের নৌকোর হাল ধরে আছেন, তিনিও আমাদের থেকে কিছু দূরে এবং উচ্চে আছেন। আপনাকে গুণের দ্বারা আকর্ষণ করতে হবে, সুতরাং আপনাকে পৃথক থাকতে হবে। আমরা সব দাড়ির দলে বলে গেছি। নির্মলা । আপনাকেও কর্মে এবং ভাবে এদের সকলের থেকে পৃথক বোধ হয়। একদিন মাত্র দেখেই আমার দৃঢ় বিশ্বাস হচ্ছে, এ সভার মধ্যে আপনি আমার প্রধান সহায় হবেন। শৈলবালা । সে তো আমার সৌভাগ্য । এই-যে আস্থন পূর্ণবাবু। আমরা আপনার কথাই বলছিলেম। বস্থন ।