প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ষোড়শ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/২৯৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিরকুমার-সভা ఇbrఏ অক্ষয় । চন্দ্রবাবু, এবারে আমাকেও দলে নেবেন । সভাটি যেরকম লোভনীয় হয়ে উঠল এখন আমাকে ঠেকিয়ে রাখতে পারবেন না । চন্দ্রবাবু। আপনাকে পাওয়া আমাদের সৌভাগ্য । অক্ষয় । আমার সঙ্গে সঙ্গে আর-একটি সভ্যও পাবেন । আজকের সভায় তাকে কিছুতেই উপস্থিত করতে পারলেম না। এখন তিনি নিজেকে স্থলভ করবেন না— বাসরঘরে ভূতপূর্ব কুমারসভাটিকে সাধ্যমতে পিণ্ডদান করে তার পরে যদি দেখা দেন। এইবার অবশিষ্ট সভ্যটি এলেই আমাদের চিরকুমার-সভা সম্পূর্ণ সমাপ্ত হয় । শৈলবালার প্রবেশ শৈলবালা । ( চন্দ্রবাবুকে প্রণাম করিয়া) আমাকে ক্ষমা করবেন। শ্ৰীশ। এ কী, অবলাকাস্তবাবু— অক্ষয় । আপনার মত-পরিবর্তন করেছেন, ইনি বেশ-পরিবর্তন করেছেন মাত্র । রসিক । শৈলজ ভবানী এতদিন কিরাতবেশ ধারণ করে ছিলেন, আজ ইনি আবার তপস্বিনীবেশ গ্রহণ করলেন । চন্দ্রবাবু। নির্মল, আমি কিছুই বুঝতে পারছি নে । নির্মলা । অন্যায় । ভারী অন্যায় । অবলাকান্তবাবু— অক্ষয় । নির্মলা দেবী ঠিক বলেছেন— অন্যায়। কিন্তু, সে বিধাতার অন্যায়। এর অবলাকান্ত হওয়াই উচিত ছিল, কিন্তু ভগবান একে বিধবা শৈলবালা করে কী মঙ্গল সাধন করছেন সে রহস্য আমাদের অগোচর। শৈলবালা ! (নির্মলার প্রতি ) আমি অন্যায় করেছি, সে অন্যায়ের প্রতিকার আমার দ্বারা কী হবে ? অাশা করি কালে সমস্ত সংশোধন হয়ে যাবে। Tপূর্ণ। (নির্মলার নিকটে আসিয়া ) এই অবকাশে আমি আপনার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করি, চন্দ্রবাবুর পত্রে আমি যে স্পর্ধা প্রকাশ করেছিলুম সে আমার পক্ষে অন্যায় হয়েছিল— আমার মতো অযোগ্য— চন্দ্রবাবু। কিছু অন্যায় হয় নি পূর্ণবাবু, আপনার যোগ্যতা যদি নির্মলা না বুঝতে পারেন তো সে নির্মলারই বিবেচনার অভাব । [ নির্মলার নতমুখে নিরুত্তরে প্রস্থান রসিক । ( পূর্ণের প্রতি জনাস্তিকে ) ভয় নেই পূর্ণবাবু, আপনার দরখাস্ত মঞ্জুর— প্রজাপতির আদালতে ডিক্ৰী পেয়েছেন– কাল প্রত্যুষেই জারি করতে বেরোবেন। শ্ৰীশ । ( শৈলবালার প্রতি ) বড়ো ফাকি দিয়েছেন । বিপিন। সম্বন্ধের পূর্বেই পরিহাসটা করে নিয়েছেন।