প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (ষোড়শ খণ্ড) - বিশ্বভারতী.pdf/৫১৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ब्रशैठा-ब्रध्नांबनौ উদ্ধার করবেন । কারণ, এই কোলাহলের জীব মানুষ যখন শাস্তিকে পায় তখন সেই গভীরতম শাস্তির তুলনা কোথায় । সে শাস্তি জনহীন সমুদ্রে নেই, মরুভূমির স্তব্ধতায় নেই, পর্বতের দুর্গম শিখরে নেই। আত্মার মধ্যে সেই গভীর শান্তি । চারি দিকের কোলাহল তাকে আক্রমণ করতে গিয়ে পরাস্ত হয় ; কোলাহলের ভিতরে নিবিড়রূপে স্বরক্ষিত সেই শাস্তি । হাট বসে গিয়েছে, বেচা-কেনার রব উঠেছে ; তারই মধ্যে প্রত্যেক মানুষ তার আপনার আত্মার ভিতরে একটি যোগাসনকে বহন করছে। হে যোগী, জাগো। তোমার যোগাসন প্রস্তুত, তোমার আসন তুমি গ্রহণ, করে ; এই কোলাহলে, ষড়রিপুর ক্ষোভ-বিক্ষোভ-বিরোধের মাঝখানে অক্ষতশাস্তি, সেইখানে বোসো । সেখানে তোমার উৎসবপ্রদীপ জালো, কোনো অশাস্ত বাতাস তাকে নেবাতে পারবে না। তুমি কোলাহল দেখে ভীত হোয়ো না ; ফলের গর্তে শস্ত যেমন তিক্ত আবরণের ভিতরে থেকে রক্ষা পায়; সেইরূপ কোলাহলের স্বারাই বেষ্টিত হয়ে চিরকাল মানুষের শান্তি রক্ষা পেয়ে এসেছে। মানুষ তার বৈষয়িকতার বুকের উপর তার ইষ্টদেবতাকে সর্বত্রই তো প্রতিষ্ঠিত করেছে। যেখানে তার আসক্তি জীবনের সব স্বত্রগুলিকে জড়িয়ে রেখেছে তারই মাঝখানে তার মন্দিরের চুড়া দেবলোকের দিকে তাকিয়ে রয়েছে। আমাদের চিত্ত আজ অমুকুল হয় নি, ক্ষতি নেই। যাক যার মন যেখানে খুশি যাক, কোনো নিষেধ নেই। তবু এই অসীম স্বাধীনতার ভিতরে মানুষের পূজার ক্ষেত্র সাবধানে রক্ষিত হয়ে এসেছে। সেই কথাটি আজ উপলব্ধি করবার জন্য কোলাহলের মধ্যে এসেছি । যার ভক্তি আছে, যার ভক্তি নেই, বিষয়ী ব্যবসায়ী পাপী, সকলেরই মধ্যে তার পূজা হচ্ছে। এইখানেই এই মেলার মধ্যেই তার পূজা হয়েছে, এই কোলাহলের মধ্যেই তার স্তব উঠেছে । এইখানেই সেই শাস্তং শিবং অদ্বৈতমের পদধবনি শুনছি ; এই হাটের রাস্তায় তার পদচিহ্ন পড়েছে । মানুষের এই আনাগোনার হাটেই তার আনাগোনা ; তিনি এইখানেই দেখা দিচ্ছেন। ৭ পৌষ রাত্রি, ১৩২১ মাঘ ১৩২১