পাতা:রাজা ও রাণী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রথম অঙ্ক তা’র পবে মাঝে মাঝে চক্ষু রাঙাইলে সে বিদ্যাও ছুটে যায় স্বপ্নের মতন ! বি । না না ভয় নাই সখা, মোন বহিলাম ; তোমার নূতন বিষ্ঠা বলে ধাও তুমি! দে। শুন তবে—বলিছেন কবি ভ হুহবি,--- “নাবার বচনে মধু, হৃদয়েতে হলাহল, অধবে পিয়ায় সুধ, চিত্তে জ্বলে দাবানল !” বি। সেই পুরাতন কথা ! দে । সত্য পুরাতন । কি কৰিব মহারাজ, যত পুথি খুলি ওই এক কথা ! যত প্রাচীন পণ্ডিত প্রেয়সাবে ঘরে নিয়ে এক দণ্ড কভু ছিল ন সুস্থির! আমি শুধু ভাবি, যাব ঘবের ব্রাহ্মণী ফিরে পরেব সন্ধানে, সে কেমনে কাব্য লেথে চুন গেথে গেথে পরম নিশ্চিন্ত মনে ? বি । মিথ্যা অবিশ্বাস ! ও কেবল ইচ্ছাকৃত আত্মপ্রবঞ্চন ! ক্ষুদ্র হৃদয়েব প্রেম নিতান্ত বিশ্বাসে হ’য়ে আসে মৃত জড়বৎ—তাই তা’রে জাগায়ে তুলিতে হয় মিথ্যা অবিশ্বাসে । হের, ওই কাসিছেন মন্ত্ৰা ! স্ত,পাকাব রাজ্যভার স্কন্ধে নিয়ে। পলায়ন করি ! দে। রাণীর রাজত্বে তুমি লওগে আশ্রয় ! ধাও অন্তঃপুরে । অসম্পূর্ণ রাজকাৰ্য্য