পাতা:রাজা ও রাণী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৬৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ইলা । ইলা । छूडौग्न अक মৌনলজ্জা প্রতিবার প্রথম মিলমে, অশ্রজল প্রতিবার বিদায়ের বেলা— আজি তা’র শেষ । আহা তাই যেন হয় ! সুখের ছায়াব চেয়ে সুখ ভালো, দুঃখ সেও ভালো । তৃষ্ণ ভালো মরীচিকা চেয়ে । , কখন তোমাবে পাব, কখন পাব না, তাই সদা মনে লয় – কখন হাবাব। একা বসে’ বসে’ ভাবি, কোথা আছে তুমি, কি করিছ, কল্পনা কাদিয়া ফিবে আসে অরণ্যেব প্রাস্ত হ’তে । বনের বাহিবে তোমাবে জানিনে আব, পাঠনে সন্ধান । সমস্ত ভুবনে তব রহিব সৰ্ব্বদা, কিছুই র’বে না তাব অচেনা, অজানা, অন্ধকার । ধরা দিতে চাহ না কি নাথ ? ধরা ত দিয়েছি আমি আপন ইচ্ছায়, তবু কেন বন্ধনের পাশ ? বল দেখি কি তুমি পাওনি, কোথা রয়েছে অভাব ? যখন তোমার কাছে সুমিত্রাব কথা শুনি বসে’, মনে মনে ব্যথা যেন বাজে । মনে হয় সে যেন আমায় ফাকি দিয়ে চুরি কধ্যে রাখিয়াছে শৈশব তোমার গোপনে আপন কাছে । কভু মনে হয় যদি সে ফিরিয়া আসে, বাল্য-সহচরী ডেকে নিয়ে যায় সেই মুখশৈশবের