পাতা:রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ.djvu/১৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
১৫৬
রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ।

 এই সকল ক্ষুদ্র চেষ্টা অবশেষে মহৎ ফল প্রসব করিল। ইঁহারা অনুভব করিতে লাগিলেন যে নিজেদের জ্ঞানোন্নতির জন্য একটা সভা স্থাপন করা আবশ্যক। তদনুসারে তারিণীচরণ বাঁড়ুয্যে, রামগোপাল ঘোষ, রামতনু লাহিড়ী, তারাচাঁদ চক্ৰবৰ্ত্তী ও রাজকৃষ্ণ দে, এই কয়েকজনে স্বাক্ষর করিয়া ১৮৩৮ সালের ২০শে ফেব্রুরারি দিবসে এক অনুষ্ঠান-পত্র বাহির করিলেন। তাহাতে এক নূতন সভার প্রস্তাব করিয়া বলা হইল যে সৰ্ব্ববিধ জ্ঞান উপার্জ্জনে পরম্পরের সহায়তা করা ও পরস্পরের মধ্যে প্রতিবদ্ধন করা উক্ত সভার উদ্দেশ্য। এই অনুষ্ঠানপত্রের মধ্যে উল্লেখযোগ্য অপর কথা এই তাঁহারা প্রস্তাব করিলেন যে এই নিয়ম করা উচিত যে যিনি বক্তৃতা দিব বলিয়া সমুচিত কারণ ভিন্ন বক্তৃতা না দিবেন, তাঁহাকে জরিমানা দিতে হইবে। এরূপ নিয়ম কোনও সভাতে পূৰ্ব্বে দেখা যায় নাই। ইহাতেই বুঝা যাইতেছে তাঁহারা কিরূপ চিত্তের একাগ্রতার সহিত উক্ত কাৰ্য্য আরম্ভ করিরাছিলেন। সংস্কৃত কালেজের তদনীন্তন সেক্রেটারী রাম কমল সেন মহাশয়ের নিকট হইতে উক্ত কলেজের হল চাহিয়া লইয়া সেখানে নবাশিক্ষিত দলের এক সভা আহবান করা হইল। উক্ত আহবানানুসারে ১২ই মার্চ দিবসে ঐ হলে উক্ত সভার অধিবেঃন হয়। সেই সভাতে তারাচাঁদ চক্রবর্ত্তীকে সভাপতি করিয়া “Society for the Acquisition of General Knowledge, অর্থাৎ “জ্ঞানাৰ্জ্জনসভা” নামে এক সভা স্থাপিত হয়। ঐসভা কয়েকবৎসর জীবিত থাকিয়া যুবক সভ্যগণের জ্ঞানবৃদ্ধির বিশেষ সহায়তা করিয়াছিল। ঐ সভাতে কিরূপ বিষয় সকলের আলোচনা হইত, তাহার ভাব পাঠকগণের গোচর করিবার জন্য কয়েকজন বক্তার ও তাঁহাদের আলোচিত বিষয়ের নাম উদ্ধৃত করিতেছিঃ—
K. M. Banerjea—Reform—civil and social—among educated natives.
Hurro Chunder Ghose—Topographical and statistical sketch of Bankurah.
Mahesh Chunder Deb—Condition of Hindu women.
Govind Ch. Sen—Brief outline of the History of Hindustan.
Govind Ch. Bysak—Descriptive notices of Chittagong.
Peary Chandra Mitra—State of Hindustan under the Hindus.
Govind Ch. Bysak—Descriptive notices of Tipperah.
Prosonno Kumar Mitra—The Physiology of Dissection,