পাতা:রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ.djvu/৩৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
২৫৩
একাদশ পরিচ্ছেদ ।

তিনি কি ভাবে স্থির ছিলেন, তাহা তিনি নিজেই এক স্থানে বাক্ত করিয়াছেন; -—“I was sustained by my faith in the ultimate triumph of truth—অর্থাৎ সত্য যাহা তাহ চরমে জয়যুক্ত হইবেই এই বিশ্বাসেই আমি সবল ছিলাম।” তাহার ভূতপূৰ্ব্ব প্রোফেসারদিগের অনেকে তাহার প্রতি খড়গহস্ত হইয়াছিলেন এবং তাহাকে অবাচ্য কুবাচ্য বলিয়াছিলেন; কিন্তু তিনি কি ভাবে সে সমুদয় কটুক্তি গ্রহণ করিয়াছিলেন, আহা ঐ ১৮৬৭ সালে মার্চ মাসে মুদ্রিত তাঁহার ঐ বক্তৃতার ভূমিকা হইতে উদ্ধৃত করিতেছি। তিনি। এক স্থানে বলিতেছেন;—

Whâtever may now have become the differences between my venerable Preceptors of the Medical College and myself, I shall always look back with ecstacy and gratitude on those days when I used to be charmed by their eloquence, pregnant with the words of Scienco. আবার ঐ ভূমিকার উপসংহারে তিনি লিখিতেছেন —

Persecution has already commenced. Professional combination is strong against me, and is likely to be stronger; every one's arm seems to be raised against me; but I cannot deprive myself of the satisfaction that mine has been, and shall be raised against none. It is...probable “my bread will be affected,” but I shall never forget the words of Jesus, who certainly speaks as man never spake, that as beings, instinet with-Reason, and made in the image of our Creator, “we must not live by bread alone, but by every word that proceedeth out of the mouth of God.”

• সকলে অনুভব করুন যখন তাহার বিরোধিগণ কোলাহল করিতেছিলেন এবং তাহার প্রতি" নানা প্রকার কটুক্তি বর্ষণ বুরিতেছিলেন, তখন এই মহামন ব্যক্তি কোন জগতে বাস করিতেছিলেন। ইহারই কিঞ্চিৎ পরে অর্থাৎ . ১৮৬৯ সালের প্রারম্ভে আমি তাহার অকৃত্ৰিষু সাধুতার এক পরিচয় পাই, তাহ চিরস্মরণীয় হইয়া ੋ। উচিত প্ৰলিয়া,লিখিয়া রাখিতেছি।

আমি তখন একুশ বাইশ বছরের ছেলে, সবে এল এ পরীক্ষা দিয়া উঠিয়াছি। সে সমরে আমি ভবানীপুরে আমার আশ্রয়দাতা ও প্রতিপালক।