পাতা:রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ.djvu/৩৬৪

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৩০২
রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ।

 এই পাঁচ প্রকার সদনুষ্ঠান ব্যতীত ভারতসংস্কার সভার অধীনে কেশবচন্দ্র সেন মহাশয় আরও কয়েক প্রকার কার্য্যে হস্তার্পণ করিয়াছিলেন। হরনাথ বসু নামক ব্রাহ্মসমাজের একজন উৎসাহী সভ্যের প্রতিষ্ঠিত একটা স্কুল নিজহাতে লইয়া তাহার এলবার্ট স্কুল নাম দিয়া চালাইতে লাগিলেন। তৎপরে কলেজ স্কোয়ারের উত্তরপার্শ্ববৰ্ত্তী পুরাতন প্রেসিডেন্সি কলেজের ব্যবহৃত একটা বাড়ী ক্রয় করিয়া, তাহাতে এলবার্ট স্কুল স্থাপন করিলেন; এবং তাহার উপরের তালার বড় হলটী ট্রষ্টিগণের হস্তে দিয়া, এলবার্ট হল নাম দিয়া, সৰ্ব্বসাধারণের ব্যবহারের জন্য রাখিলেন।

 এতদ্ব্যতীত এই সময়ে কেশবচন্দ্র সেন মহাশয়ের অনুষ্ঠিত আর একটী প্রধান কাৰ্য্য ভারত আশ্রমের প্রতিষ্ঠা। ১৮৭২ খ্ৰীষ্টাব্দে ঐ কার্য্যের সূত্রপাত হয়। কেশবচন্দ্র ইংলণ্ড বাসকালে ইংরাজজাতির গার্হস্থ্যনীতি দেখিয়া অত্যন্ত মুগ্ধ হইয়াছিলেন। তিনি সৰ্ব্বদা বলিতেন ইংরাজের home বা গৃহ-পরিবারের ন্যায় জিনিসটা আর পৃথিবীতে নাই। বাস্তবিক ইংরাজ মধ্যবিত্ত ভদ্রগৃহস্থের গৃহের ধৰ্ম্মভাব, সুশৃঙ্খলা, সুনিয়ম, মিতাচার, পরিচ্ছন্নতা, কার্যবিভাগ, নরনারীর স্বাধীন সন্মিলন, শিশু পালন প্রভৃতি সমুদয় অতীব প্রশংসনীয় এবং অনুকরণের যোগ্য। তিনি মনে করিলেন একটা আশ্রম স্থাপন করিয়া কতকগুলি ব্রাহ্মপরিবারকে তাঁহাতে থাকিবার জন্য আমন্ত্রণ করিবেন; এবং তাহাদিগকে কিছুকাল সুনিয়মে ও ধৰ্ম্মসাধনে নিযুক্ত রাখিয়া পারিবারিক ধৰ্ম্ম-জীবনে শিক্ষিত করিবেন। তৎপরে তাহারা সেই শিক্ষায় ভাব লইয়া নানা স্থানে যাইবে; ক্রমে ব্রাহ্মপরিবার সকল ধৰ্ম্মসাধন, শৃঙ্খলা ও সুনিয়ম বিষয়ে আদর্শ পবিবার হইব। তাহার অভিপ্রায় অতি মহৎ ছিল। তাঁহার আহ্বানে আমরা অনেকে সপরিবারে ভারত-আশ্রমে গিয়া বাস করিয়াছিলাম। সেখানে একত্র উপাসনা, একত্র আহার, সময়ে পাঠ, সময়ে কাৰ্য্য প্রভৃতির ব্যবস্থা হইয়াছিল। তদ্দ্বারা আমরা আপনাদিগকে বিশেষ উপকৃত বোধ করি। দুঃখের বিষয় আশ্রমটী বহুদিন স্থায়ী হয় নাই; কয়েক বৎসর পরেই উঠিয়া যায়।

{gap}আর এক কারণে এই আশ্রমপ্রতিষ্ঠার কালটী বিশেষ ভাবে স্মরণীয়। এই সময়ে ব্রাহ্মসমাজে ও তদ্বারা বঙ্গসমাজে স্ত্রী-স্বাধীনতার আন্দোলন ও চর্চ্চা উপস্থিত হয়। ব্রাহ্মসমাজের ভিতরে ভিতরে অনেকদিন হইতে ঐ চর্চ্চা চলিতেছিল। ইহার কিছু পূৰ্ব্বে পূৰ্ব্ববঙ্গের বিক্রমপুর প্রদেশ হইতে একজন