পাতা:রামতনু লাহিড়ী ও তৎকালীন বঙ্গসমাজ.djvu/৩৭১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।
৩০৯
দ্বাদশ পরিচ্ছেদ॥


ভারত সভা স্থাপনে সহায়তা করিলেন। আমাদের অনেকের সহিত দ্বারকানাথ গাঙ্গুলি মহাশয়। ভারত সভাতে যোগ দিলেন; এবং পরে ইহার সহকারী সম্পাদকরূপে প্ৰসিদ্ধি লাভ করিয়াছিলেন।

আনন্দ মোহন বন্ধু ও সুরেন্দ্র নাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীনে ভারত সভা একটী মহৎকাজ। করিতে লাগিলেন। কয়েকজন ভ্রমণকারী বক্তা নিযুক্ত করিয়া স্থানে স্থানে সভা করিয়া বন্ধুতা কয়াইতে লাগিলেন। এই ভ্রমণকারী বক্ত গণ সর্বত্র ভারত সভার দিকে মধ্যবিত্ত শ্রেণীর দৃষ্টিকে আকর্ষণ করিতে লাগিলেন; ইহার অনুষ্ঠিত নানা প্রকার কার্যোর জন্য অর্থসংগ্রহ করিতে লাগিলেন; এবং রাজনীতির চর্চার অভ্যাস যাহাদের ছিল না, সেই চল্টাতে তাহাদিগকে নিযুক্ত করিতে লাগিলেন। দ্বারকা নাথ গঙ্গোপাধ্যায় মহাশয়। এই সকল কাৰ্য্যে বিশেষ উৎসাহী ও যত্নপর ছিলেন।

১৮৭৮ সালে কুচবিহারের নাবালক রাজার সহিত কেশবচন্দ্র সেন মহাদয়ের অপ্রাপ্তবয়স্ক ক্যার বিবাহ উপলক্ষে ব্রাহ্মদিগের মধ্যে মতভেদ ঘটিয়া, উন্নতি শীল ব্রাহ্মগণ দুই ভাগে বিভক্ত হন। প্রতিবাদকারী দল ১৮৭৮ সালের মে মাসে সাধরণ ব্রাহ্মসমাজ নামে একটি। স্বতন্ত্র সমাজ স্থাপন করেন। এই সাধারণ ব্রাহ্মসমাজের অগ্রণী সভ্যগণের উৎসাহে ও উদ্যোগে দিটা স্কুল নামে একটী নূতন ব্গ স্থাপিত হর। উহার অনুষ্ঠান-পত্ৰ আনন্দমোহন বস্থ, সুরেন্দ্র নাথ। বন্দ্যোপাধ্যায় ও আমার নামে বাহির হয়।, আনন্দমোহন বাবু তাহার পরামর্শ দাতা, সুরেন্দ্র বাবু একজন শিক্ষক ও আমি প্রথম সেক্রেটারি থাকি। এই সিটস্কুলের স্থাপন সে সমস্তৃকার একটী বিশেষ ঘটনা বলিয়া এসকল বিষয়। উল্লেখ করিতেছি। সে সময়ে ইহ৷ সকলের দৃষ্টিকে আকর্ষণ করিম্নাছিল। তথন আনন্দমোহন বস্তু ও সুরেন্দ্র নাথ বন্দ্যোপাধ্যায় ছাত্রদলের ও তাহাদের। অভিভাবকদিগের এত প্রিয় পাত্র ছিলেন, যে স্কুল খুলিবা মাত্র প্রথম মাসেই ছাত্র। সংখ্যা এত কইল যে ব্যয় বাদে অর্থ উহু,ত্ত হইল।

ঐ ১৮৭৯ সালেই সাধারণ। ব্ৰহ্মসমাজের সভ্যগণ ছাত্রদিগের জন্য ছাত্র সমাজ নামে একটী বমাজ স্থাপন কমিলেন। নবপ্রতিষ্ঠিত সিটাস্কুলের ভবনে প্রতি রবিবার প্রাতে তাহার অধিবেশন হইত। বিশ্ববিদ্যালয়ের অবলম্বিত শিক্ষা। প্ৰণালী ধর্ম • শিক্ষা বিহীন এই অভাবকে কিরৎ পরিমাণে দূর করা ঐ ছাত্র সমাজের উদ্দেষ্ট্য ছিল। বহুসংখ্যক ছাত্র এই সমাজে যোগ দিল॥ আনন্দমোহন বস্তু মহাশয়ও আমি প্রধানত: